Doctor Tips

উদ্বেগে ভুগছেন? এই পাঁচ পথ্য আপনাকে সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে

নয়াদিল্লি: উদ্বেগ একটা মানসিক ব্যাধি৷ এই রোগ বাড়ার আগেই তাতে লাগাম পরানো উচিত৷ মানসিক চাপের মোকাবিলা করার ক্ষমতা প্রত্যেকেরই আলাদা৷ কিন্তু মানসিক চাপ বাড়লে তার ছাপ পড়ে শরীরের উপরেও৷

উদ্বেগ বাড়লে অনেক সময়েই স্বাভাবিক চিন্তা ভাবনা করার পথ আটকে যায়৷ মন ছটফট করতে থাকে, অজানা ভয় চেপে ধরে৷ এর থেকে হার্টের রোগ, শ্বাসকষ্ট, পশী ব্যথা, রক্তচাপ ইত্যাদি নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে৷ উদ্বেগের লক্ষণগুলির হল বুক ধড়ফড় করা, ঘাম, কাঁপুনি, বিরক্তি, হালকা মাথাব্যথা এবং চরম চাপ অনুভব।

তাই উদ্বেগে ভুগলে কখনই একা থাকা উচিত নয়৷ সব সময় কারও না কারও সঙ্গে কথা বলা বা গান শোনা উচিত৷ পাঁচটি জিনিস উদ্বেগ হ্রাস করতে সাহায্য করে৷ এগুলি হল-

ভিটামিন ডি- মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষিত রাখতে অসাধারণ পথ্য হল ভিটামিন ডি৷ এটি মেজাজ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে এবং সমস্ত ধরনের উদ্বেগ এবং হতাশা কমাতে সাহায্য করে৷ আমরা সূর্যের আলো থেকে ভিটামিন ডি পেয়ে থাকি৷ এছাড়াও বিপুল পরিমাণ ভিটামিন ডি রয়েছে দুধে৷ চিকিৎসকরা মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য ভিটামিন ডি নেওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন৷

ভিটামিন বি-১২ –ভিটামিন বি ১২ শরীর থেকে চাপ কমাতে সাহায্য করে৷ এটি মূলত প্রাণি থেকে পাওয়া যায়৷ এই ভিটামিনটি হ্যাপি হরমোন তৈরি করে এবং আপনার মেজাজকে নিয়ন্ত্রণ করে। এটি আপনার স্নায়ুতন্ত্রের জন্যও উপকারী।

ম্যাগনেসিয়াম- মানব শরীরের জন্য ম্যাগনেসিয়াম অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খনিজ৷ এটি উদ্বেগের মতো মানসিক রোগ কমাতে সাহায্য করে৷ মস্তিষ্ককে সতেজ রাখে৷ বিপুল পরিমাণ ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে ডার্ক চকোলেট, পালং শাক, কাজু এবং বাদামে৷

ভিটামিন সি- ডিপ্রেশন এবং উদ্বেগের অন্যতম দাওয়াই ভিটামিন সি৷ এটি আপনাকে চনমনে রাখতে সাহায্য করে৷ মানসিক ভাবে ফিট রাখে৷

ক্যামোমাইল- ক্যামোমাইল তার শান্ত প্রভাবগুলির জন্য পরিচিত। এটি উদ্বেগ মুক্ত রাখতে সাহায্য করে৷ ভালো ফল পেতে চায়ের সঙ্গে ক্যামোমাইল মিশিয়ে খেতে পারেন৷ এটি আপনাকে চাপ মুক্ত রাখবে৷

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

সিনেমার বড় পর্দা থেকে টেলি পর্দার জগতে কতটা সম্মান পাচ্ছেন মেয়েরা? জানাবেন মিডিয়া টিচার অনুজা বাগচী।

Back to top button