International

এক সপ্তাহের মধ্যে আসছে ভ্যাকসিন, জানাল রাশিয়া

মস্কো: রাশিয়ার তৈরি করোনা ভ্যাকসিন ফের সংবাদ মাধ্যমে আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছে। ব্লুমবার্গ রিপোর্ট অনুসারে রাশিয়া পরিকল্পনা করেছে অগাস্টের ১০-১২ তারিখে করোনা ভ্যাকসিন নথিভূক্ত করবে। ‌ ওই রিপোর্ট জানাচ্ছে, মস্কোর গামালেয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ ইপিডেমিওলজি এন্ড মাইক্রোবায়োলজি-র তৈরি ভ্যাকসিন এবার জনগণের ব্যবহারের জন্য অনুমোদন পাবে ৩ থেকে ৭ দিনের মধ্যে নথিভুক্তকরণের পর।
এটা হল সেই ভ্যাকসিন যেটা এই মাসের গোড়ায় মানুষের উপর সফলভাবে প্রয়োগ হয়েছে বলে রিপোর্ট বের হয়। জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহে এই ভ্যাকসিন মানুষের ওপর প্রয়োগের প্রথম ধাপ করা হয়েছিল। তারপর দ্বিতীয় ধাপের কাজ শুরু হয় ১৩ জুলাই থেকে। একটা ভ্যাকসিন জনগণের কাছে ছাড়া হয় না যতদিন না তিনটি ধাপে মানুষের ওপর তা প্রয়োগ করা হচ্ছে। তবে এক একটা ধাপ কয়েক মাস ধরে কাজ চলে। রিপোর্ট অনুসারে সে ক্ষেত্রে রাশিয়া পরিকল্পনা করেছে দ্বিতীয় ধাপের কাজ আগে করার এবং তৃতীয় ধাপের কাজ ছাড়াই ভ্যাকসিন ব্যবহারের অনুমোদন দেওয়া হবে।
ব্লুমবার্গ রিপোর্ট জানাচ্ছে, গামালেয়া ভ্যাকসিন শর্তসাপেক্ষে অগস্টে নথিভুক্ত করা হবে। এর অর্থ হলো ব্যবহারের জন্য অনুমতি দেওয়া হচ্ছে তবে পাশাপাশি তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা-নিরীক্ষা কাজ চলবে।
সেপ্টেম্বর মাস থেকে এই ভ্যাকসিন উৎপাদন শুরু হবে বলে আশা করা হচ্ছে। ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল যতদিন না সম্পূর্ণ হচ্ছে ততদিন তা শুধুমাত্র চিকিৎসকরাই সেটা নিয়ন্ত্রণ করবে।

যদিও বিজ্ঞানী এবং স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছে তাড়াহুড়ো করে ভ্যাকসিন বের করার ব্যাপারে। তারা চাইছেন, নিরাপত্তা এবং কার্যক্ষমতার ব্যাপারে নিশ্চিত না হয়ে ব্যবহারের জন্য অনুমোদন করা উচিত নয়।

তবে আবার অন্য একটি সূত্রে এই ভ্যাকসিন নিয়ে আলোড়ন উঠেছে কারণ রুশ প্রশাসনের কর্তারা জানিয়েছিলেন আগামী কয়েকদিনের মধ্যে এই ভ্যাকসিন চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়ে যাবে। রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের (আরডিআইএফ) প্রধান ক্রিমিল দিমিত্রিভ জানিয়েছেন, প্রথম দেশ হিসেবে রাশিয়া তাদের করোনা টিকা বাজারে আনবে।এ ব্যাপারে ক্রিমিল দিমিত্রিভ বলেছেন, স্পুতনিকের মহাকাশ যাত্রা দেখে মার্কিনীরা যেমন অবাক হয়েছিল। একই ঘটনা ঘটবে করোনা টিকার ক্ষেত্রেও। বিশ্ববাসী অবাক হয়ে রাশিয়ার সাফল্য দেখবে।
১৯৫৭ সালে সোভিয়েত আমলে বিশ্বের প্রথম স্যাটেলাইটের সফল উৎক্ষেপণের মাধ্যমে বিশ্বকে হতবাক করে দিয়েছিল রাশিয়া।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close