International

এবার ঘরের মধ্যে করোনা শনাক্ত করবে সেন্সর

লন্ডন: কোভিডকালেও (COVID 19) তো মাঝে মাঝে ভিড় জমে। কিন্ত সেই ভিড়ের মধ্যে কারোর শরীরে করোনা লুকিয়ে রয়েছে কিনা বুঝবেন কিভাবে? ভাবছেন তো, এ আবার হয় নাকি। বোঝার তো আর উপায় নেই। এসব ক্ষেত্রে ভাগ্যের উপরই পুরো বিষয়টা ছেড়ে দিতে হবে। না, চাইলে আপনি আপনার ভাবনায় পরিবর্তন করতে পারেন। চাইলে ঘরের মধ্যে যে জমায়েত হয়েছে, সেখানে কোনো ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত কিনা তা জেনে নিতে পারেন। সেটা করে দখাতে পারে একটি সেন্সর। যে সেন্সর তৈরি করে ফেলেছে রোবোসায়েন্টিফিক (RoboScientific) সংস্থা।

‘Study suggests device is up to 100 per cent accurate’
– Created by #Cambridgeshire based firm @roboscientific @DailyMailUK #[email protected] @BBCScienceNews @LSHTM @TimesScience https://t.co/wYzV4qohkM

— Roboscientific Limited (@roboscientific) June 13, 2021

রোবোসায়েন্টিফিক (RoboScientific) সংস্থার মতে, এই নির্ভুল সেন্সরটি ঘরে করোনা আক্রান্ত থাকলে ১৫ মিনিটের মধ্যেই তা জানিয়ে দেবে। করোনা (COVID 19) শনাক্ত হতেই বেজে উঠবে অ্যালার্ম। তাঁদের মতে, যদি করোনা আক্রান্তের উপস্থিতি চিহ্নিত করা যায় এই সেন্সরের মাধ্যমে, তাহলে দ্রুত পরীক্ষা করে সিদ্ধান্তে আসা যাবে। যার জেরে সংক্রমণও রোখা সম্ভব হবে। সংস্থার এও দাবি যে, মেশিনটি ৯৮ থেকে ১০০ শতাংশ সঠিক তথ্যই দিয়ে থাকে।

সেন্সরটি (sensor) সম্পর্কে বলতে গিয়ে বিজ্ঞানীরা জানান, কোনও বদ্ধ ঘরে একসঙ্গে অনেকে সেখানে কেউ করোনা আক্রান্ত আছে কিনা তা চিহ্নিত করে দেবে রোবোসায়েন্টেফিক (RoboScientific) সেন্সর। শুধু বদ্ধ ঘরে নয়, বিমানেও এই সেন্সর ব্যবহার করা যেতে পারে। করোনাকালে সেক্ষেত্রে আরেকটু নিরাপদে ভ্রমণ করতে পারবেন বিমান আরোহীরা।

গবেষকদের দাবি, উন্নত প্রযুক্তির সেন্সরটি দেহের শ্বাস-প্রশ্বাসের প্রকার, অঙ্গভঙ্গিতে পরিবর্তন যদি দেখে তখনই অ্যালার্ম বাজাবে। তারপর আক্রান্তকে সহজেই চিহ্নিত করা সম্ভব হবে। করোনা নিয়ে একদিকে যখন গোটা বিশ্বে দিশেহারা পরিস্থিতি। তখনই এমন এক উদ্ভাবন সত্যিই নতুন করে আশা জাগাচ্ছে। ভ্যাকসিন, অক্সিজেনের পাশাপাশি এই নতুন সেন্সরও করোনাকে ঠেকাতে প্রস্তুত।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

Back to top button