Recipe

ওজন নিয়ন্ত্রণের সুস্বাদু রেসিপি হাতে…বানান শসার স্যুপ

কলকাতা: গরম তো পড়েই গেলো। এবার শরীর ঠান্ডা রাখতে বাড়িতে মা-পিসিরা নানা টোটকা বলবেন। কিন্তু সবথেকে বেশি লাভ হবে এই বিশেষ রেসিপিতে। তবে এর আরেকটি বিশেষ উপকারও রয়েছে। তা হলো ওজনও কমবে তরতরিয়ে। স্বাদ-গন্ধহীন এই সব্জি শশা এমনিতেই ওজন কমানোর জাদুকাঠি হিসেবে কাজ করে। এই গরমে মনকেও শান্তিও দেবে শশার এই অজানা রেসিপি। খাটনিও কম আবার কাজও দেবে ষোলয়ানা। আবার অন্যদিকে, এটি বানাতে তেমন খুব বেশি উপকরণও লাগবে না। কাঁচা শশা অনেকেই ভালোবাসে না। তাই তাদের জন্যে বিশেষ করে রায়তা, স্যালাডের বাইরে এক অন্য চমক থাকলো এই রেসিপিতে।

উপকরণ: চারটি শশার সঙ্গে নিন এক বাটি দই, দুই-তিন চামচ মৌরি, এক কাপ জল ও এক চামচ পাতিলেবুর রস।

প্রণালী: শশার খোসা ছাড়িয়ে নিয়ে ব্লেন্ড করে পেস্ট বানান। এরপর তাতে মেশান দই, মৌরি, জল ও লেবুর রস। আবার একবার সবটা নিয়ে ব্লেন্ড করুন। মিশ্রণটি খুব ঘন হয়ে গেলে পাতলা করতে জল আবার নিতে পারেন প্রয়োজন মতো। ওজন কমাতে আজকাল ব্রাউন ব্রেড সবার বাড়ির ফ্রিজেই থাকে। সেই ব্রেড দুটো স্লাইস নিয়ে দুটোরই দুইপাশ কেটে রাখুন ছুরি দিয়ে।

আরো পোস্ট-  কেমন কাটবে রবিবাসরীয় দিন…জানুন রাশিফল আপডেট

সামান্য অলিভ অয়েল ঢালুন প্যানে। এতে এবার ভেজে নিন পাউরুটির দুটি টুকরো। এটি ভাজা হয়ে গেলে নামিয়ে নিয়ে উপরে ঢেলে দিন শশার স্যুপটি। এর সঙ্গে আর অন্য কিছু লাগবে না। সঙ্গে পেঁয়াজ বা টম্যাটো রাখতে পারেন সাজানোর জন্যে বা খাওয়ার জন্যেও। এই স্যুপটি কোথাও থেকে ঘুরে এসে বা দুপুরে বা বিকেলে টিফিন হিসেবে খেতে পারেন। ওজন যেমন কমবে তেমন শরীর থাকবে তরতাজা। ক্লান্তিভাব কেটে যাবে।

শশায় যে পরিমাণ ফাইবার আছে তাতে আমাদের ঘন ঘন খিদে পাওয়ার প্রবণতাকে কমিয়ে দিতে পারে এটি। ফলে ফাস্ট ফুড বা জাঙ্ক ফুড খাওয়ার পরিমাণ কমে যেতে বাধ্য। এই কারণেই ফ্যাট জমতে পারে না আমাদের শরীরে।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।

Back to top button