Bangladesh

করোনায় আইনজীবীদের জন্য ৩০০ কোটি টাকা দাবি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে আদালত বন্ধ ঘোষণা হওয়ায় জুনিয়র আইনজীবীদের সহায়তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে ৩০০ কোটি টাকা প্রণোদনার আবেদন করেছেন এক আইনজীবী।
আবেদন পাঠানোর বিষয়ে শনিবার (৪ এপ্রিল) সারাবাংলাকে জানিয়েছেন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের সভাপতি ও সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ।

তিনি জানান, করোনভাইরাসের কারণে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যবহার করে গতকাল শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার কাছে আবেদনটি পাঠানো হয়েছে।
আবেদনে বলা হয়েছে, আইন পেশায় ৫৫ হাজারের বেশি ব্যক্তি নিয়োজিত আছেন। তার মধ্যে একটি অংশ জুনিয়র হিসেবে কাজ করছে। সাধারণত সিনিয়রদের প্রতিদিনের দেওয়া অর্থই তাদের একমাত্র অবলম্বন। আদালত বন্ধ থাকায় তারা তা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। এ ছাড়া জুনিয়রশিপ শেষ করে যারা নিজস্ব প্রাকট্রিস শুরু করেন তাদেরকেও কয়েক বছর সামান্য আয় দিয়ে চলতে হয়। দীর্ঘ দিন কোর্ট বন্ধ থাকায় তারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন।
আবেদনে আরও বলা হয়, বর্তমানে মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে দেশের সকল মানুষকে নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করতে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এবং এ আদেশ কার‌্যকর করতে অফিস আদালত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ ছুটিতে দিনমজুর, রিকশ চালক, দৈনিক আয়ের লোকদের সংকটের কথা বিবেচনা করে সরকারি অর্থ বা খাদ্য সরবরাহ করা হচ্ছে। এমনকি ব্যবসা বাণিজ্যের মন্দা বিবেচনা করে ব্যবসায়িদের আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা করা হয়েছে।
এ অবস্থায় বাংলাদেশের হাজার হাজার আইনজীবীদের জন্য অন্যান্য পেশার মতো সরকারের পক্ষ থেকে আর্থিক সহযোগিতার জন্য ৩০০ কোটি টাকা প্রনোদনা তহবিল গঠন করার আহবান জানাচ্ছি। এর থেকে প্রত্যেক জুনিয়র বা ক্ষতিগ্রস্থ আইনজীবীদের ১ লাখ টাকা বিনা সুদে প্রদান এবং ২০২১ সালে ৪ কিস্তিতে পরিশোধের ব্যবস্থা করার অনুরোধ করছি।
প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের কারণে গত ২৬ মার্চ থেকেই সারাদেশের অফিস আদালত ছুটি ঘোষণা করে সরকার। সে হিসেবে সুপ্রিমকোর্টসহ সারাদেশের আদালতে সাধারণ ছুটি শুরু হয়।
সারাবাংলা/এজেডকে/এমআই

সূত্রঃ সারাবাংলা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close