International

করোনা ভাইরাস আতঙ্কেও এ দেশে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে বাদুড়ের স্যুপ

জাকার্তা: প্রায় সারা বিশ্ব চিনা ভাইরাস করোনা আতঙ্কে কাঁপছে। সকলেই কম বেশি মানছেন বাদুড়ের মাংস খেয়েই এই রোগ ছড়িয়েছে। যদিও এ সম্পর্কে কোনও পাকা পোক্ত প্রমাণ নেই। কিন্তু চিনের যে উহান প্রদেশ থেকে এই মারণ রোগ ছড়িয়েছে, সেই শহরের অবস্থা রীতিমতো ভয়াবহ।
ইতিমধ্যে শুধু চিনেই এই রোগের কবলে পড়ে মৃত্যু হয়েছে হাজারের বেশি মানুষের। কিন্তু তবুও সচেতনতাঁর লেশমাত্র নেই ইন্দোনেশিয়ায়। সেখানে একটি বাজারে প্রকাশ্যে চলছে বাদুড়ের স্যুপ বিক্রি। প্রশাসনের নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে অবাধে চলছে এই কারবার।
এক বিক্রেতা জানিয়েছেন, এই স্যুপের ব্যবসা বেশ জনপ্রিয়। পাশপাশি অদ্ভূত হলেও ওই ব্যবসায়ীর দাবি, ব্যাপক চাহিদা রয়েছে ওই স্যুপের। তিনি জানিয়েছেন, এই স্যুপ সবসময় বিক্রি হয়েই যায়। এতটাই বেশি এর জনপ্রিয়তা।
যদিও ইন্দোনেশিয়ায় স্থানীয় সরকার এবং স্বাস্থ্য সংস্থা বাদুড় সহ অন্যান্য বন্যপ্রাণী না খাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে – তবে অনুরোধ অগ্রাহ্য করা হচ্ছে বারবার, ফলে আরও বাড়ছে করোনার আশঙ্কা।

বাদুড়ের পাশাপাশি বেশ কিছু বিজ্ঞানীরা দাবি করছেন, সাপ থেকে ছড়াচ্ছে এই ভাইরাস। অন্যদিকে উঠে এসেছে আরও একটি মত। বলা হচ্ছে দুটি ভাইরাসের সম্মিলিত রূপ হল করোনা ভাইরাস। এর মধ্যে একটি উৎস হল বাদুড়, অপর উৎসটিকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি। মানব দেহে প্রবেশের আগে এই ভাইরাসকে শেষবার দেখা গিয়েছে সাপের শরীরে। তাই অনেকের বক্তব্য, বাদুড়ের দেহ থেকে সাপের শরীরে প্রবেশ করেছে এই ভাইরাস।
চিনের বেশ কিছু এলাকায় সাপ নিয়ে রীতিমতো নাড়াচাড়া করা হয়। পাশাপাশি চিনে সাপ খাওয়াও হয়। সেভাবেই এই ভাইরাস মানব শরীরে প্রবেশ করতে পারে। অনেকের আবার বক্তব্য, বাদুড়ের দেহ থেকেও সরাসরি মানুষের শরীরে এই ভাইরাস প্রবেশ করতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close