Islam

কোরবানির মাংস সংরক্ষণ করবেন যেভাবে

আর মাত্র কয়েক দিন। তার পরেই ঈদুল আযহা। আর ঈদুল আযহা মানেই পশু কোরবানি দেয়া। আর এই পশুর মাংস সংরক্ষণের একটা ঝামেলা তো আছেই। সাধারণত আম’রা মাংস রান্না করে খেয়ে ফেলি। সেটা এক-দুইদিন রেখেও খেতে পারি। কিন্তু কোরবানির এতগুলো মাংস তো আর হুট করেই খাওয়া সম্ভব নয়। আর কোরবানির মাংস সংরক্ষণ করেই খাওয়া হয়। তাই সংরক্ষণ যদি ঠিকমত করা না হয় তবে পরবর্তীতে খাওয়াটাও ঝামেলা হয়ে যাবে।

কী’ভাবে সংরক্ষণ করবেন কোরবানির মাংস
১. ফ্রিজে রাখার আগে
ফ্রিজের মধ্যে বাক্সের থেকে প্লাস্টিকের ব্যাগেই মাংস রাখা উচিত। চর্বিসহ মাংসগুলো আলাদা রাখাই ভালো। ফ্রিজে রাখার আগে, ধোয়ার পর পানি ভালো করে ঝরিয়ে নিন। না হলে অনেক দিন রেখে দিলে মাংস নষ্ট হয়ে যাবে।

২. ইলেকট্রিসিটি না থাকলে
মাংস ফ্রিজে রাখার এক সপ্তাহের মধ্যে বাসায় ইলেকট্রিসিটি না থাকলে খুব একটা ফ্রিজ খুলবেন না। এতে মাংস শক্ত হওয়ার আগেই বাতাস লাগলে বেশি দিন ভালো থাকবে না।

৩. রান্না করা ও কাঁচা মাংস
রান্না করা ও কাঁচা উভ’য়ের ক্ষেত্রে বিষয়টি একরকম। তবে এগুলোও শূন্য ডিগ্রি ফারেনহাইটে ডিপ ফ্রিজে এক বছর রাখা যাবে। তবে স্বাদ, পুষ্টিগুণ থাকবে না। ফ্রিজে মাংস রাখার ক্ষেত্রে বড় বড় টুকরো করে রাখতে হবে। কারণ, ছোট টুকরোতেও অনেক সময় পানি ও র’ক্ত জমে থাকে।

৪. ৪০ ডিগ্রি ফারেনহাইট
৪০ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা তার নিচে কাঁচা মাংস ৪ থেকে ৬ দিন রাখা যায়। এছাড়া জিরো ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রার নিচে রাখলে গরুর কাঁচা মাংস ১২ মাস ভালো থাকবে।

৫. প্যাকে’টের গায়ে তারিখ লিখু’ন
মাংস ফ্রিজে রাখার আগে প্যাকে’টের গায়ে তারিখ লিখে রাখু’ন। এতে মাংসগুলো কত দিন সংরক্ষণ করা হয়েছে সেটা সহ’জেই বোঝা যাবে।

৬. তাপমাত্রা
ফ্রিজে মাংস রাখার ক্ষেত্রে তাপমাত্রা ঠিক আছে কি না সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। যে তাপমাত্রায় মাংস সব সময় বরফ থাকবে সেই তাপমাত্রা সেট করে তারপর মাংস রাখতে হবে।

৭. প্লাস্টিকের ব্যাগ
মাংস অবশ্যই প্লাস্টিকের ব্যাগে বা অ্যালমোনিয়াম ফয়েলে রাখতে হবে। প্লাস্টিকের ব্যাগ বা অ্যালমোনিয়াম ফয়েলে রাখলে বাতাস থাকে না। বাতাস ঢুকলে ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close