Recipe

গরমে পাতে থাকুক আমের আচার, শরীর থাকবে চাঙ্গা

দিনে দিনে ক্রমেই বাড়ছে গরম। সূর্য রীতিমতো তেড়েফুঁড়ে মাঠে নেমে পড়েছে। এমন অবস্থায় কোনও খাবারেই যেন মন চায় না। তবে টক টক আমের আচার হলে তেমন মন্দ হয় না। আগে বাড়িতে দিদা-দিদিমারাই এই আচার বানাতেন, কিন্তু এখন সে সব অতীত। তাই আচারের জন্য বাজারই ভরসা। কিন্তু এখন আপনি হাতের কাছেই পেয়ে যাবেন আচার, আপনাকে কোথাও যেতে হবে না। নীচের ছবিতে ক্লিক করুন আর সরাসরি কিনে নিন আচার।

 

এই আচারের দাম রয়েছে ১৮৪ টাকা। কিন্তু অফারে এটি মিলছে ১৫৪ টাকা। অর্থাৎ ছাড় রয়েছে ৩১ টাকা। এই জারে রয়েছে ১ কেজি আচার। ৬ মাস রেখে এই আচার খেতে পারেন আপনি। আমের আচার খেলে শরীর বেশ চাঙ্গা হয়ে পড়ে।

কিনতে পারেন অসাধারণ একটি মোবাইল –  ৪০০০ টাকা ছাড়ে মিলছে রেডমি নোট ৯

কোম্পানির তরফে বলা হয়েছে কোনও ঠাণ্ডা ও শুকনো জায়গায় এই আমের আচারের যার রাখা যেতে পারে। তবে কোনও ভাবেই ফ্রিজে না রাখতে বলা হয়েছে। অন্য দিকে এটি সম্পূর্ণ নিরামিষ।

 

এছাড়া এই আচারের যে জারটি আছে, সেটি রয়েছে ৫০০ গ্রাম। এতে রয়েছে নানান ধরনের আমের টুকরো। এটা সম্পূর্ণ নিরামিষ। এটা খেতেও যেমন ভালো, তেমনই স্বাদও আলাদা। এর দাম রাখা হয়েছে ৪০০ টাকা। তবে অফারে এটি মিলবে ২৬৯ টাকায়। এর ফলে বাঁচবে ১৩১ টাকা। এই জারের মুখ খোলার পরে ১২ মাস অবধি এটি খাওয়া যাবে।

আচার খাওয়ার নানান সুবিধা রয়েছে। এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ক্যালসিয়াম, ইলেক্ট্রোলাইট, ভিটামিন সি রয়েছে। শুতে যাবার আগে যদি কেউ আচার খান, সেক্ষেত্রে পায়ে খিঁচ ধরা এবং আচমকা খিঁচ ধরার মতন সমস্যা হয় না। এছাড়া আচার ওজন কমাতে সাহায্য করে। পাকস্থলীর ঘরোয়া চিকিৎসা করতেও এর জুড়ি মেলা ভার।

আরও খবর পড়ুন – BREAKING: ফের আক্রান্ত ২৩ হাজারের বেশি, মাত্রা ছাড়াচ্ছে মহারাষ্ট্রের সংক্রমণ

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।

Back to top button