Islam

চরম হুঁশিয়ারি, ‘চীনের কাছে ভারতীয় সেনাবাহিনী কিছুই না’।

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভা’রত-চীনের সং’ঘর্ষে এক কর্নেলসহ ২০ ভা’রতীয় সে’না সদস্য নি’হত হন। তারপর থেকেই উত্তপ্ত লাদাখ পরিস্থিতি। লাল ফৌজকে উপযু’ক্ত জবাব দিতে ফুসছে পুরো ভা’রত। মোতায়েন হয়েছে প্রায় ৫০ হাজার অ’তিরিক্ত সে’না। টি-৯০ ভীষ্ম ট্যাংক, বসানো হয়েছে ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপণযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র, এয়ার সার্ভেল্যান্স সিস্টেম।

তবে বেইজিংও ছেড়ে কথা বলার পাত্র নয়, সীমান্ত থেকে একচুলও পিছু তো হটেইনি, উল্টো সাম’রিক শক্তি বৃদ্ধি করে চলেছে। এমন পরিস্থিতিতে চীন-ভা’রত র’ক্তক্ষয়ী সংঘাত আসন্ন বলে মনে করছেন সাম’রিক বিশ্লেষকরা।

ক্রমশ জটিল হচ্ছে লাদাখের পরিস্থিতি। শুক্রবার (৩ জুলাই) সকালে হঠাৎ করেই লাদাখে পৌঁছে যান ভা’রতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সীমান্তে এখন প্রতি মুহূর্তে চাপা টেনশন, কড়া নজরদারি। এই পরিস্থিতিতে সে’নাদের মনোবল আরো চাঙ্গা করতে লাদাখ যান মোদী।

আরও পড়ুন : দক্ষিণ চীন সাগরে বিমানবাহী রণতরী পাঠাচ্ছে যু’ক্তরাষ্ট্র

এদিকে মোদী আচ’মকা লাদাখ সফর নিয়ে কড়া বার্তা দিয়েছে চীন। কমিউনিস্ট সরকারের মুখপত্র গ্লোবাল টাইমস-এর এডিটর-ইন-চিফ হু শিজিন মোদীর লাদাখ সফর নিয়ে টুইট করেছেন। সেখানে মোদীর সফরকে রাজনৈতিক চ’মক বা স্টান্ট বলে ব্যাখ্যা করেছেন। এরপরেই চরম হুঁশিয়ারি। সে’নাবাহিনীর হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেছেন, ভুলেও যেন চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির ধারে কাছে না আসে ভা’রতীয় সে’নাবাহিনী।

টুইটে তিনি লিখেছেন, আমি বুঝতে পারছি প্রধানমন্ত্রী মোদীর সীমান্তে রাজনৈতিক চ’মক দেখিয়ে কড়া কড়া কথা বলা দরকার হয়ে পড়েছে। কিন্তু দয়া করে চুপি চুপি সীমান্তে ভা’রতীয় সে’নাদের বলে দিন, যে চীনকে তোম’রা চেন, সে কিন্তু ভা’রতের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিধর। পিএলএ-র সঙ্গে যেন তারা পাল্লা দিতে না যায় কেননা পিএলএ-র কাছে তারা কিছুই নয়।

আরও পড়ুন : লাদাখ থেকে ফিরেই আরও সে’না পাঠালেন মোদি

প্রসঙ্গত, শুক্রবার হঠাৎ লাদাখ পরিদর্শনে যান ভা’রতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সীমান্তে দাঁড়িয়েই চীনকে কড়া বার্তা দেন। বলেন ‘গালওয়ান আমাদের’। লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন সে’নাবাহিনীর মনোবল বাড়াতে শুক্রবার ভোরেই লাদাখে পৌঁছান নরেন্দ্র মোদি।

সূত্র : কলকাতা ২৪।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close