Entrepreneur

চাকরি ছেড়ে সফল উদ্যোক্তা হাসান

স্বাধীনভাবে কাজ করার জন্য আর নিজের একটা পরিচয় গড়তে উদ্যোক্তা হতে চেয়েছিলেন হাসান। অন্যের অধীনে চাকরির চেয়ে নিজের স্বাধীন ব্যবসায় বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করতেন। তাই চাকরি ছেড়ে উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে বেছে নিলেন। কাজ শুরু করলেন হকার্সবিডিডটকমে। 

বাচ্চাদের থেকে শুরু করে বড়দের পাঞ্জাবী এবং গৃহিণীদের যাবতীয় পণ্য পাওয়া যায় হাসানের মার্কেটপ্লেসে। কিছু দিন অনলাইনে ঘাটাঘাটি আর খালাতো ভাই সাইদের সহযোগিতায় শুরু করলেন হকার্সবিডিডটকম (www.hawkersbd.com) নামে অনলাইন ব্যবসা।

২ লাখ টাকা নিয়ে শুরু করেছিলেন ব্যবসা এখন মূলধন ২৩ লাখ টাকা।

মো. হাসানুজ্জামান সুজন ইউনিভার্সিটি অব ডেভলেপমেন্ট অল্টারনেটিভ (ইউডা) থেকে ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশনে বিএসসি শেষ করেছেন।

শুরুতে  জুয়েলারি আইটেমের পেজের মাধ্যমে অনলাইনে সেল করা শুরু করেন।  এরপর পথচলা শুরু করলেন টি-শার্ট নিয়ে। কাজ করার শুরুতেই অনেক ভাল সাড়া পান কিন্ত ডেলিভারির সমস্যা ও ই-কমার্সের বিষয় না জানার কারণে অনেক সমস্যার সমাধান পেতেন না হাসান।

তখন চিন্তা করলেন শো-রুম দিলে ভাল হবে কারণ অনেক পণ্য সাইজের কারণে স্টকে জমা পড়ে থাকত। পরিবার থেকে কিছু টাকা, চাকরির জমানো টাকা আর ভাইয়ের কাছে সাহায্য নিয়ে দুইটি শো-রুম দিলেন ২০১৪ সালে।

একই সাথে ঢাকায় ও মেহেরপুরে শো-রুম খুলে ফেলেন হাসান।

প্রথম বছর ব্যবসা ভাল চলা শুরু করলেও বছর পার হতে না হতেই সরাসরি নিজে দেখভাল করতে না পারার কারণে ও কিছু ভুল পণ্য স্টক করার জন্য লসের মুখোমুখি হতে হয় উদ্যোক্তা হাসানকে ।

অফলাইনে ব্যস্ততার কারণে অনলাইনে বিক্রি কমে গিয়েছিল সেই সাথে দোকানে অনেক টাকা আটকে গিয়েছিল।

হাসান উদ্যোক্তা বার্তাকে বলেন, ‘২০১৫ সালে রাজিব ভায়ের সাথে পরিচিত হয়, তখন রাজিব ভায়ের ও ই-ক্যাব গ্রুপের পোস্ট দেখে ই-কমার্সের নতুন নতুন বিষয় সম্পর্কে জানতে পারি। ২০১৬ তে অনলাইনের জন্য ভ্যালেন্টাইন কাপল টি-শার্ট বানাই এবং চাহিদার চেয়েও বেশি সাড়া পাই।’

পারিবারের চাপের কারণে চাকরিটি ছাড়তে পারছিলেন না কারণ পরিবার থেকে বারবার বলত একটা পর্যাপ্ত আয় আসে চাকরি থেকে চাকরি ছাড়ার দরকার নেই বরং ব্যবসা ছেড়ে দাও। কিন্তু ততোদিনে হাসান ব্যবসাকে গুছিয়ে ফেলেছে।

হাসান উদ্যোক্তা বার্তাকে বলেন, ব্যবসার শুরু থেকেই দু’জন মানুষ সবচেয়ে বেশি সাহস যুগিয়েছে একজন আমার সহধর্মিণী মুক্তি ও আরেক জন আমার খালাতো ভাই সাইদ। যে কোন বিষয়ে পরামর্শ ও অনুপ্রেরণা দিয়েছেন ই-কমার্সের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট রাজিব আহমেদ ভাই। তার কারণে এখন আমাদের কয়েকজন ব্যবসায়ী নিয়ে একটি টিম হয়ে গিয়েছে। রাজিব ভাইয়ের সাথে আমার এই সমস্যাগুলো নিয়ে কথা বললে উনি সব শুনে আমাকে চাকরি ছাড়ার পরামর্শ দেন। ব্যবসায় মনোযোগ দিতে আর লেগে থাকতে বলেন।

রাজিব ভাইয়ের পরামর্শে ২০১৬ সালের শেষের দিকে চাকরি ছেড়ে ব্যবসাতে মনোযোগী হই। ২০১৭ তে ই-ক্যাব ও ই-কমার্সের উপর ট্রেনিং নিলাম যা আমার ই-কমার্স ব্যবসাতে নতুন কিছু শেখাল। অনলাইনে মোটামুটি চলা শুরু করলাম কিছু আনস্টিচ থ্রি-পিচ ও গেজেট আইটেম নিয়ে। পণ্য নিজের সাইটে ও কিছু মার্কেট প্লেসে দেয়া শুরু করলাম।

হাসান ব্যবসার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে বলেন, ড্রেসের জন্য নিজের কারখানায় পণ্য তৈরি হবে আর ব্যবসার প্রসার আরো বৃদ্ধি করতে চাই।

হকার্সবিডিডটকমে পাওয়া যায় যাবতীয় থ্রিপিস, টি-শার্ট, শাড়ি, পাঞ্জাবি ইত্যাদি পোশাক। যার সর্বনিম্ন মূল্য ১৬০ টাকা সর্বোচ্চ মূল্য ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত।

ক্রেতাদের সাড়া পাচ্ছেন বলে আজ আমি সফল উদ্যোক্তা এমনটাই বলছিলেন হাসান। তিনি আরো জানান, প্রতিমাসে ১৮০০-২২০০ অর্ডার প্রকিয়াকরণ হচ্ছে যা আনুমানিক ১৫ লাখ টাকার বিক্রি হচ্ছে।

একসময় হাসান চাকরি করতেন কিন্তু এখন চাকরি দেয় হাসান। এক রুমের অফিস আর দুজন লোক দিয়ে শুরু করে এখন আল্লাহর রহমতে এগারো’শ স্কয়ার ফিটের অফিস ও ১০ জনের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন তিনি।

নতুন Agambartaদের উদ্দেশে বলেন, কিছু না জেনে বুঝে ব্যবসা শুরু করার আগে এ বিষয়ে জেনে ও বুঝে যদি সম্ভব হয় কোন প্রতিষ্ঠানে এক বছর ভাল ভাবে বুঝে চাকরি করে বাস্তব অভিজ্ঞতা নিয়ে শুরু করতে পারলে ক্ষতির পরিমাণ অনেক কমে যায়।

খাদিজা ইসলাম স্বপ্না 

Leave a Reply

Back to top button
Close