Doctor Tips

ত্বক বয়স্ক দেখাচ্ছে? আজ থেকেই যত্ন নিন, ঘরে আনুন সোপ ফ্রি ফেস ওয়াশ

অনেকেরই কম বয়সে ত্বকে রুক্ষতা চলে আসে৷ মুখ-সহ শরীরে বিভিন্ন অংশে বয়সের ছাপ ধরা পড়ে৷ শুধুমাত্র অজ্ঞতার কারণেই অধিকাংশ মানুষ ত্বকের সঠিক যত্ন নিতে জানেন না৷ খামোখা না জেনে ত্বকের পরিচর্যা করতে গিয়ে আদতে ডেকে আনেন বিপদ৷ ত্বক মসৃণ ও সতেজ হওয়ার বদলে আরও বেশি রুক্ষ, শুষ্ক হয়ে পড়ে৷ স্বাভাবিকভাবেই যা মানসিকভাবেও আপনাকে বিপর্যস্ত করে তোলে৷ এবার তাই ত্বকের যত্ন নিতে হবে সব দিক জেনে-শুনে৷

 

ত্বক বয়স্ক দেখানোর প্রধান লক্ষণ হচ্ছে এজ স্পট বা তিল। এগুলো প্রথমে হালকা থাকে৷ কিন্তু সময়ের সঙ্গে-সঙ্গে ত্বকের যত্ন না নিলে এই তিলই একটা সময় গাঢ় রং ধারণ করে। অনেকের মুখের বিভিন্ন অংশে শুকিয়ে দাগ পড়ে যায়৷ সময়ের সঙ্গে-সঙ্গে সেই দাগ আরও গভীর হতে থাকে৷ ত্বক-বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আপনার শরীরের চামড়া পরিষ্কার করতে গেলে শুধুমাত্র সাবানই যথেষ্ট নয়৷ ত্বক পরিষ্কার করতে আজই ঘরে আনুন সোপ ফ্রি ফেস ওয়াশ৷ নিয়মিত এই সোপ ফ্রি ফেস ওয়াশটি ব্যবহার করুন৷ তাহলেই ফল মিলবে হাতেনাতে৷ সাবান আপনার ত্বকের স্বাভাবিক ঔজ্বল্য কমিয়ে দেয়৷ দিনের পর দিন ত্বক পরিস্কার করতে গিয়ে আপনি শুধু সাবান ব্যবহার করে গেলে আপনার ত্বকের ঔজ্বল্য কমে যাবে৷ ত্বক শুকিয়ে যাবে৷

একাধিক সংস্থা এখন বাজারে সোপ ফ্রি ফেস ওয়াশ এনেছে৷ তেমনই কোনও ফেস ওয়াশ আপনি কিনে নিতে পারেন৷ আজ থেকে ত্বকের ঔজ্বল্য ফেরাতে ব্যবহার করুন এই ফেস ওয়াশ৷ নিয়মিত ব্যবহারে আপনি ফল পাবেনই৷ মুখের পাশাপাশি পুরো শরীরেরই যত্ন নিতে হবে। আমরা প্রতিদিন নানা কাজে বাড়ির বাইরে যাই৷ বাড়িতে ফিরে এসে ভালো করে ঘাড়, গলা, হাত, পায়ের খোলা অংশ ও মুখ ধুয়ে নিতে হবে৷ তারপর সোপ ফ্রি ফেস ওয়াশ ব্যবহার করুন৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দিনে বাড়ির বাইরে গেলে অবশ্যই এসপিএফ ৪০+ সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার করুন। রাতে ক্লিনজিং-টোনিং এর পর অবশ্যই ভালো সিরাম ব্যবহারও করতে পারেন৷ ত্বক সতেজ রাখতে সিরামও বেশ কার্যকরী।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।

Back to top button