বাংলাদেশ

‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’র উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ শনিবার (২৫ মে) দেশের দীর্ঘতম রেলপথ ঢাকা-পঞ্চগড়-ঢাকা রুটে স্বল্প বিরতির আন্তঃনগর ট্রেন ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ উদ্বোধন করেছেন। দুপুরে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্রেনটির উদ্বোধন করেন তিনি।

এরপর নির্ধারিত সময়ে পঞ্চগড়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলস্টেশন থেকে ট্রেনটি ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। উদ্বোধনের দিন ট্রেনের প্রতিটি যাত্রী বিনামূল্যে ঢাকা আসার সুযোগ পাবেন এবং সব যাত্রীর জন্য থাকছে ইফতারের আয়োজন রয়েছে।

ট্রেনটি উদ্বোধনের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থা যত বেশি উন্নত হবে। আমরা অর্থনৈতিকভাবে তত বেশি শক্তিশালী হব। আরও উন্নত হবো এবং দেশ এগিয়ে যাবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের স্বপ্ন ছিল মানুষের মুখে হাসি ফোঁটানো উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের সঙ্গে দারিদ্র্য বিমোচনটা আরও দ্রুত হবে। মানুষের কর্মসংস্থান বাড়বে। মানুষের জীবনমান উন্নত হবে। আমাদের লক্ষ্য আমরা বাংলাদেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ হিসাবে গড়ে তুলবো। সেই লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত। ঢাকা থেকে পঞ্চগড় সরাসরি রেল যোগাযোগ হচ্ছে। এছাড়াও পঞ্চগড় থেকে সড়ক যোগাযোগও কিন্তু অনেকভাবে করে দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পঞ্চগড়বাসী শুধু না, সারাদেশের জনগণকে আমি ধন্যবাদ জানাই। তারা আমাদেরকে নির্বাচনে ভোট দিয়ে সেবা করার সুযোগ করে দিয়েছেন বলেই আমরা এই কাজগুলো সম্পন্ন করতে পারছি। ঈদের আগে এটা চালু হচ্ছে। এছাড়া যারা পঞ্চগড়ে যাবেন তারা খুব দ্রুত পৌঁছে যেতে পারবেন আবার ছুটি শেষে দ্রুত কর্মস্থলেও আসতে পারবেন।

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা ও ট্রেনের কামরাগুলি ভালভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এগুলো জনগণের সম্পদ। সেটা সবাইকে মনে রাখতে হবে। সেটা মনে রেখে ব্যবহার করতে হবে।

এছাড়াও ভবিষ্যতে বিদ্যুৎ চালিত ট্রেন চলাচল চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

এরপর পঞ্চগড়-ঢাকা-পঞ্চগড় রুটে আন্তঃনগর পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পঞ্চগড় থেকে ঢাকা- এ রেল রুটের দূরত্ব ৫৯৩ কিলোমিটার। ট্রেনটি প্রতিদিন দুপুর সোয়া ১২টায় পঞ্চগড় থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসবে। কমলাপুরে পৌঁছাবে রাত ১০টা ৩৫ মিনিটে। রাত ১২টা ১০ মিনিটে ট্রেনটি ঢাকা থেকে ছেড়ে সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে পঞ্চগড় পৌঁছবে। যাত্রাপথে রুহিয়া, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, পাবর্তীপুর ও ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে থামবে। ঢাকা থেকে আসার পথেও এসব স্টেশনে থামবে ট্রেনটি।

আগামবার্তা/ডেস্ক

Leave a Reply

Back to top button
Close