বাংলাদেশ

‘পড়ালেখা ভালো লাগে না তাই বাড়ি থেকে পালিয়েছিলাম’

আগাম বার্তাডেস্ক : স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে থাকার ৫ বছর পর ফিরে এসে প্রতারণার মামলায় কারাগারে থাকা সেই কিশোর আবু সাঈদকে (১৫) বৃহস্পতিবার ঢাকার-৫ নম্বর নারী ও শিশু নি’র্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।
বিচারক বেগম শাসসুন্নাহার এ মামলার ভিকটিম আবু সাঈদ ও তার বাবা মোহাম্মদ আজমকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। জিজ্ঞাসাবাদে বাবা আজম আদালতে উপস্থিত ছেলেকে দেখিয়ে বলেন, এই সেই আবু সাঈদ, যে হারিয়ে গিয়েছিল। ভিকটিম আবু সাঈদকে বিচারক জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, পড়ালেখা ভালো লাগত না। তাই বাড়ি থেকে সে পালিয়ে গিয়েছিল। তাকে কেউ অ’পহরণ করেনি বলে জানান। একই সঙ্গে আবু সাঈদের মা মাহিনুর বেগমকেও কারাগার থেকে ওই ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।
এসময় আসামিপক্ষের আইনজীবী মো. ওয়াহিদুজ্জামান আদালতকে জানান, একটি ছেলে নিজ থেকে পালিয়ে যায়। সেখানে মিথ্যা অ’পহরণ মামলায় তিনজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে তাদের নি’র্যাতন করে দুইজনকে দিয়ে মিথ্যা হত্যার স্বীকারোক্তি আদায় করা হয়। আজ সেই মৃ’ত ছেলে আদালতে দাঁড়িয়ে আছে।
মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির এসআই (বর্তমানে ডেমরা থানায়) রুহুল আমিন নি’র্যাতন করে মিথ্যা স্বীকারোক্তি আদায়কারীর মাস্টারমাইন্ড ছিলেন। এ প্রতারণার সঙ্গে জড়িতদের বিচার চাই।
মামলাটির শুনানি শেষে বিচারক এই আবু সাঈদ যে, এ মামলার নিহত আবু সাঈদ তা আমাকে পুলিশ প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানতে হবে। তাই আগামী ২২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে হাজারীবাগ থানাকে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিল করতে আদেশ দিলাম। আর অপনাদের মিথ্যা মামলার বিচার চাওয়ার আবেদনের আদেশ পুলিশ প্রতিবেদন পাওয়ার পর দেওয়া হবে।
শুনানিকালে মিথ্যা অভিযোগের মামলায় দীর্ঘদিন জেলহাজতে থাকা মো. সাইফুল ইসলাম, সোনিয়া আক্তার ও তার ভাই আফজাল হোসেন ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত ছিলেন।

আগামবার্তা/এসআর

শেয়ার করুন

আপনি আরও যা পড়তে পারেন

আপনি আরও যা পড়তে পারেন

Leave a Reply

Back to top button
Close