Islam

ফ্রান্সে মুসলিম নারীদের হিজাব পরা নিষিদ্ধ করলেও এবার মুখ না ঢাকলেই জরিমানা!

বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে আ’লোচিত বিষয় হচ্ছে করোনা ভাইরাস। দিনদিন এই ভাইরাসে মৃ’তের সংখ্যা বেড়েই চলছে। এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে মৃ’ত্যু হয়েছে ৩ হাজার ২৮৫ জনের। বিভিন্ন দেশে দেড় লক্ষ মানুষ এ ভাইরাসে আ’ক্রান্ত হয়েছে। এছাড়া চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৫৩ হাজার ৬৮৮ জন। ইতোমধ্যে বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আ’ক্রান্ত তিনজন রোগী শনাক্ত হয়েছে।

এদিকে, করোনায় আ’ক্রান্ত শীর্ষ ১০ দেশের মধ্যে রয়েছে ফ্রা’ন্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আ’ক্রান্ত হয়েছে ৪ হাজার ৪৬৯ জন। এর মধ্যে মা’রা গেছে ৯১ জন।

ইউরোপের দেশ ফ্রান্সে আইন করে মু’সলিম নারীদের হিজাব পরা নি’ষিদ্ধ করা হলেও করোনা সংক্রমিত হওয়ার পর দেশটির নাগরিকরা এখন মুখ ঢেকে চলাফেরা করতে বাধ্য হচ্ছেন! এমনকি মুখোশ না পরে বা মুখ না ঢেকে চলাফেরা করলে ১৫০ ইউরো জরিমানার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সম্প্রতি, ফ্রান্সের বিখ্যাত ‘প্যারিস ফ্যাশন সপ্তাহ’- এ মডেলরা মুখোশ পরেই অংশগ্রহণ করেন। মডেলদের পরিহিত মুখোশগুলো দেখতে অনেকটাই হিজাবের মতোই ছিল।

শুধু ফ্রা’ন্সেই নয়, বিশ্বের অনেক দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় নারী মডেল থেকে শুরু করে সবাই মুখোশ পরছেন। নিরাপত্তার বিষয়ের দিকে লক্ষ্য রেখেই তারা এ মুখোশ পড়ছেন। প্যারিসের ওই ফ্যাশন সপ্তাহ নিয়ে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি বিবিসি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

ওই প্রতিবেদনটি টুইটারে শেয়ার করেন নামিরা ইস’লাম নামের এক নারী। টুইটার হ্যান্ডেলে ওই নারী নিজেকে বাঙালি মু’সলিম আইনজীবী ও গ্রাফিক ডিজাইনার বলে উল্লেখ করেছেন।

নামিরা ইস’লাম বলেন, এবং যেখানে আমাকে বলা হয়েছিল, উদ্দেশ্যমূলকভাবে অ’প’রাধ ও নিরাপত্তা হু’মকির জন্য তোমা’র মুখ ঢেকে (পর্দা) রাখ।’

ফ্রান্সের হিজাব নিষিদ্ধের ঘটনা স্ম’রণ করিয়ে দিয়ে টুইটবার্তার কমেন্টবক্সে তিনি আরও লেখেন- ফ্রা’ন্স হলো সেই দেশ যারা মুখের ওড়নার (হিজাব) ওপর প্রথম নিষেধাজ্ঞার প্রবর্তন করেছিল।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে ফ্রান্স যখন প্রথম ‘মুখ ঢাকা পোষাক’ নি’ষিদ্ধ করে তখন তা ইউরোপে তীব্র বিতর্ক সৃষ্টি করে। ইউরোপে ফ্রান্সই ছিল প্রথম দেশ যারা এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close