Entrepreneur

বায়োটেকনোলোজিস্ট না হয়ে হুমায়রা হলেন সফল নারী উদ্যোক্তা

বাঙালী মেয়েদের সাজ মানেই অলঙ্কার। নারীর ভূষণ ও বলা হয় অলঙ্কারকে। বাঙালীর ঐতিহ্য, পরম্পরা, সংস্কৃতির সাথে জড়িয়ে আছে অলঙ্কার। বাঙালী মেয়েদের গহনার বাক্স দেখলে যে কেউ অবাক হয়ে যায়। অনুষ্ঠানে গহনা না পরলে যেন সাজটা পরিপূর্ণ হয় না। উদ্যোক্তা হুমায়রা নূরের গয়নার বাক্স বিডি এমনই একটি প্রতিষ্ঠান যেখানে পাওয়া যাবে মেয়েদের সব রকমের গহনা। 

হুমায়রা নূর ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি থেকে বায়োটেকনোলজিতে স্নাতক শেষ করেছেন। হওয়ার কথা ছিল বায়োটেকনোলোজিস্ট কিন্তু হয়ে উঠলেন সফল নারী উদ্যোক্তা।

হুমায়রা  নূর ২০১৫ সালে ৪ ফেব্রুয়ারি সামান্য কিছু পণ্য কানের দুল,নোজপিন ইত্যাদি কিনে ব্যবসা শুরু করেন। কয়েক দিনের মধ্যেই সবগুলো বিক্রি হয়ে যায় বান্ধবীদের মধ্যে এবং পরে দেশি ডিলার, চায়নিজ ডিলারের সাথে কাজ করা শুরু করেন  উদ্যোক্তা। এই উদ্যোক্তা একটু ভিন্ন ভাবে চিন্তা করে সামনের দিকে এগিয়েছেন।

কাস্টমার কি চায়? মার্কেটের কি অবস্থা? কোন পণ্য বেশি প্রচলিত? কোন বয়সের জন্য কোন পণ্যটা, এইগুলো যাচাই করে ব্যবসা করেছেন এবং হয়েছেন সফল।

তিনি বলেন, পরিবারের সবাই ব্যবসার সাথে জড়িত, আমি  থেমে ছিলাম। পড়েছি বায়োটেকনোলজিতে, চিন্তা ছিল নতুন কিছু করব কিন্তু পরিবারের সবাই ব্যবসা করে কথায় আছে না রক্তে এই জিনিস ব্যাপারটা আসলে এমন রক্তে ব্যবসা আর ব্যবসা করে মজা পেয়ে গেছি তাই ব্যবসাটাই ধরে ফেললাম।

পরিবার থেকে ব্যবসার জন্য পেয়েছেন অনেক সহযোগিতা। তিনি বলেন, এখন অনলাইন ব্যবসা অনেকেই করে তবে সবার থেকে একটু সামনে আমি। এর পুরো কৃতিত্ব আমার পরিবারের। ধানমন্ডিতে একটা শো-রুমও আছে গয়নার বাক্স বিডির।

গয়নার বাক্স বিডি নাম দেওয়ার কারণ হিসেবে বলেন, আমার গয়নার বাক্স বর্তমানে ব্যস্ত আছেন পূজার গহনা নিয়ে। বাঙালীর তো অনুষ্ঠান চলতেই থাকে বছর জুড়ে আর গহনাও লাগে সব মিলিয়ে সারা বছর। আমি চাই আমার একটা গয়নার বাক্স হবে যেখান থেকে সারা পৃথিবীর মানুষ গয়না কিনবে। যার কারনে গয়নার বাক্স বিডি নামটা দেওয়া।

গয়নার বাক্স বিডিকে নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা বলেন, ” অনেকগুলো শো-রুম এবং গয়নার বাক্স বিডি  হবে  একটা ব্রান্ড। গয়নার বাক্সকে সবাই এক নামে চিনবে, জানবে। বাংলাদেশের মানুষ গহনার কথা বললেই একটা নাম নিবে গয়নার বাক্স বিডি এমন একটা অবস্থান হবে।”

গয়নার বাক্সতে মেয়েদের সব ধরণের গহনা পাওয়া যায়; টিপ থেকে শুরু করে পায়েল পর্যন্ত। সর্বনিম্ন  মূল্য ৩০ টাকা এবং সর্বোচ্চ মূল্য ১০ হাজার টাকা।

অল্প কিছু পণ্য নিয়ে শুরু করা ব্যবসা গয়নার বাক্স বিডিতে এখন কাজ করেন ৯ জন মহিলা এবং অনলাইনে প্রতি দিনে প্রায় ১০০ জন ক্রেতার চাহিদা মেটান এই গয়নার বাক্স বিডি। অনলাইন এবং অফলাইন দু’দিক থেকে ভাল সাড়া পাচ্ছেন বলে জানান হুমায়রা।

নতুন Agambartaদের উদ্দেশ্যে  বলেন, “ব্যবসা করার প্রথম শর্ত হচ্ছে লেগে থাকতে হবে। এমন হলে হবে না যে, কোনো অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে শুরু করলাম, লাভ হল। অনুষ্ঠান শেষ আমার ব্যবসাও শেষ এমনটা করা যাবেনা।

পেয়েছেন বেস্ট সেলার আওয়ার্ড সহ আরো বেশ কিছু সম্মাননা। অনুপ্রেরণা পেয়েছেন বাবা -মায়ের কাছ থেকে। মা অনেক বিচক্ষণতার সাথে সব কাজ করেন। আর আমিও মায়ের দেখে দেখে শিখছি। কোন কিছু করলে তা বিচক্ষণতার সাথেই করব। একটা পরিবারের সহযোগিতা একটা মেয়ের জন্য আর্শীবাদ আর  সেই আর্শিবাদ পেয়েছি আমি বলেন হুমায়রা নূর।

খাদিজা ইসলাম স্বপ্না

Leave a Reply

Back to top button
Close