International

বিশ্বের প্রথম করোনা আক্রান্তও বলছেন, ‘চিন ব্যবস্থা নিলে ছড়াত না ভাইরাস’

বেজিং: চিনের ছোট্ট শহর উহান। আর সেই শহরের নাম শুনলেই এখনও কেঁপে উঠছে গোটা বিশ্ব। সেখান থেকেই তো সূত্রপাত মারন ভাইরাস COVID-19-এর। কী থেকে ছড়াল অসুখ? কোথা থেকে এল ভাইরাস? খুব একটা স্পষ্ট জবাব নেই কারও কাছে। তবে যিনি প্রথম এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন, তিনি এখন সুস্থ। তাঁর দাবি, চিন যদি সাবধানী হত, কড়া ব্যবস্থা নিত তাহলে এভাবে বিশ্ব মহামারীর আকার ধারণ করতে পারত না করোনা ভাইরাস।
করোনায় প্রথম আক্রান্ত হন ৫৭ বছরের মহিলা ওয়েই গুইজিয়ান। সেটা গত বছরের ডিসেম্বর মাস। পেশায় চিংড়ি মাছ বিক্রেতা ছিলেন তিনি। ১০ ডিসেম্বর তাঁর কাশি শুরু হয়। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছিল, সাধারণ জ্বর। স্থানীয় এক ক্লিনিকে যেতেই তাঁকে একটি ইঞ্জেকশন দেওয়া হয়। কিন্তু দিনের পর দিন ক্রমশ দুর্বল হতে থাকেন গুইজিয়ান। দিন দুয়েক পরই উহানের ইলেভন্থ হাসপাতালে যান। সেখানেও ধরা পড়েনি এই মারণ ভাইরাস। ১৬ ডিসেম্বর ওই অঞ্চলে সবচেয়ে বড় উহান ইউনিয়ন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যান গুইজিয়ান। আর সেই হাসপাতালেই তাঁকে বলা হয় যে, শরীরে কঠিন রোগ বাসা বাঁধছে।
এরপরই ওই হাসপাতালে বাড়তে থাকে রোগীর ভোড়, যাদের সবার শরীরেই একই ধরনের উপসর্গ। গুইজিয়ানের দেখাদেখি ওই হাসপাতালে ছোটেন হুনান মার্কেটের আরও অনেক মানুষ। এমনকি অনেক ক্রেতাও আক্রান্ত হয়ে পড়েন ওই রোগে। ডিসেম্বরের শেষের দিকে ওয়েই গুইজিয়ানকে কোয়ারানটাইনে রাখা হয়। তাঁর শরীরে মেলে COVID-19 ভাইরাসের উপস্থিতি মেলে। সে সময় ডাক্তারদের ধারণা, উহানের ওই সামুদ্রিক খাবার বিক্রির মার্কেট থেকেই ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস।
এরপরই তড়িঘড়ি উহানের ওই সামুদ্রিক খাবার-দাবার মার্কেটটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। জানুয়ারি মাসের প্রায় শেষ। গুইজিয়ানের শরীরে COVID-19 এর উপস্থিতি পাওয়ার পর এক মাস কেটে গিয়েছে। যদিও জানুয়ারির দিকেই ধীরে ধীরে সুস্থ হতে শুরু করেন ওয়েই গুইজিয়ান। তাঁকে COVID-19 পেসেন্ট জিরো বলে ঘোষণা করা হয়।

অনুমান করা হয় ওই মার্কেটের টয়লেট ব্যবহার করাতেই তাঁর শরীরে এই ভাইরাস সংক্রামিত হয়। সেখান থেকেই তার শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হয়েছে। ওয়েই গুইজিয়ান জানান যে, তাঁর সঙ্গে আরও যাঁরা ওই বাজারে নানানতর ব্যবসা করতেন, তাঁদের শরীরেও থাবা বসিয়েছে এই মারণ ভাইরাস।
উহান মিউনিসিপ্যাল হেলথ কমিশনের তরফে নিশ্চিত করে বলা হয়েছে যে, প্রথম COVID-19 আক্রান্ত হয়েছিলেন যে ২৭ জন রোগী তাঁদের মধ্যেপ্রথমেই ছিলেন ওয়েই গুইজিয়ান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close