offbeat news

ভালোবাসার রং হোক ভিবজিওর, ছক ভাঙা প্রেমের সন্ধানে ‘জেন Y’

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় : ভালোবাসার রং নাকি লাল! একদম ভুল বলছেন আপনি। ওঁরা বলছে , ভালোবাসা রঙবেরঙের হয়। ভালোবাসা হয় ভিবজিওরের মতো। মনে পড়ছে ভৌতবিজ্ঞানের কথা? হ্যাঁ , পদার্থ রসায়ন মিলে এক বিজ্ঞান। সেই বই প্রথম শিখিয়েছিল ভিবজিওর বাংলায় ‘বে নী আ স হ ক লা’। দলছুটের কলম বলছে এবারের LOVE হোক বেনীআসহক’লাভ’। সহজ কথায় হরেক রঙের, হর এক কিসমের।
কোথায় লেখা রয়েছে ভালোবাসার জন্য যদি কোনও নির্দিষ্ট দিন হয় তাহলে তা শুধু একজন ‘young couple’ এর প্রেমের জন্যই তা বরাদ্দ? এটা দেখানোর জন্যই নিলিম সেন , মৌমিতা, দেবর্চিতা, অঙ্কিতা, তৃণারা। ওঁরা বলছেন, ছকে বাঁধা ভালোবাসা নয়, অন্যরকম ভালোবাসার উৎসবে এবার মাতবে শহর।
কেমন সেই সব ছক ভাঙার গল্প? একজন পুলিশকে ওঁরা ফুল দিয়ে বলতে চাইছেন , ‘ফুল দেওয়ার যে নির্দিষ্ট দিন হয়, তা বোধহয় ফেব্রুয়ারিই শেখায় আমাদের৷ তবে প্রতি বছরের ‘রোজ ডে’ আপামর জনতাকে শেখায়, সেই দিনটা কেবল কাপল্-দের। একটা বছর ছক ভাঙা যাক? আমরা তো দিতেই পারি একটা গোলাপ তাঁদের, যাঁরা প্রতিনিয়ত আমাদের সুরক্ষায় নিয়োজিত। তাঁরা প্রেমিক না হন, তবু রক্ষা তো তাঁরাও করেন। উর্দির আড়ালে তো তাঁদেরও মন আছে, অনুভূতি আছে। নতুন দশক থেকে ফেব্রুয়ারি জানুক, জানাক নতুন নিয়ম– ভালোবাসার দিন পুলিশদেরও।’

ছক ভাঙা ভালোবাসার কথা তুলে ধরতে ওঁরা বলছেন নারী-পুরুষ নির্বিশেষে, ভালোবাসার কথা। ওঁরা বলছেন, ‘ভালোবাসার দিনে কুঁকড়ে না থেকে সমকামী প্রেমেও আসুক জোয়ার।’ ওঁরা জানাচ্ছেন, ‘কোনও শাস্ত্রমতে লেখা নেই, ভালোবাসা কেবল নারী এবং পুরুষের মধ্যে হতে পারে।’ চাইছেন এমন দিনে, ‘একটা ছেলেও নির্দ্বিধায় বলুক না তার প্রেমিককে “I Love You!”একটি মেয়ে সবার সামনে হাঁটু গেড়ে প্রেম নিবেদন করুক তার বান্ধবীকে।’ কারণ ভালোবাসা কোনও গন্ডি মানে না। ভালোবাসা সবার জন্য।
 

আবার ফিরে আসুক ঠাকুমার বয়ফ্রেন্ডরা। প্রেমের দিনে একটা চকোলেট, একটা ফুল। হতেই তো পারে। বয়স্কদের ঠাই হচ্ছে বৃদ্ধাশ্রমে। তাই ওঁরা বলছেন , ‘এবার এসব বন্ধ হোক। এবার থেকে ঠাকুমাকে দাও না একটা চকোলেট? প্রেমিকা তো আছেই, তবে উনি তোমার জন্ম থেকে তোমায় ভালোবাসেন, তাই না?


আর যারা সিঙ্গল, আর কেঁদে মরো প্রেম করবে বলে, তারাও বাপু ঠাকুমাকে চকোলেট দাও। সুগার বাড়লে বাড়ুক৷ মিষ্টত্ব ছড়িয়ে পড়ুক সব সম্পর্কে৷’ ভালোবাসার দিনটা হোক ওঁদের জন্যও যাদের শৈশব কাটে রাস্তার ট্রাফিকে লুকোচুরি খেলে। একটা টেডি বিয়ার গিফট ওদেরও দেওয়া যেতেই পারে। লোকদেখানি নয় দেশপ্রেম হোক অন্তরের।
ছবি ও তথ্য সৌজন্যে – ‘দলছুটের কলম’
 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close