International

মহাকাশ যাত্রায় বেজোসের সফরসঙ্গী হতে ২০০ কোটি খরচ!

কলকাতা ২৪X৭ ডেস্ক: মহাকাশ যাত্রার বাকি আর এক মাস। তার আগেই আমাজন প্রধানের সফরসঙ্গী হতে মোটা টাকা খরচ করলেন এক ব্যক্তি। জানা গিয়েছে, মহাকাশ যাত্রায় আমাজন (Amazon) প্রধান জেফ বেজোসের (Jeff Bozes) সঙ্গী হতে ২৮ মিলিয়ন ডলার খরচ করেছেন রহস্যময় এক ব্যক্তি। যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ২০৫ কোটি টাকা। তবে ওই ব্যক্তির নাম এখনও প্রকাশ করা হয়নি।

এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, শনিবার বেজোসের প্রতিষ্ঠান ব্লু অরিজিন (Blue Orizin) একটি নিলামের আয়োজন করে। সেই নিলামেই ঘটে এই ঘটনা। সবাইকে চমকে দিয়ে এক ব্যক্তি মহাকাশ যাত্রায় বেজোসের সঙ্গী হওয়ার জন্য কোটি কোটি টাকা খরচ করে।

কবে গোটা বিশ্ব ওই ব্যক্তির নাম জানতে পারবে? এবিষয়ে এক টুইট বার্তায় কোম্পানিটি জানিয়েছে, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে বিজয়ী ব্যক্তির নাম প্রকাশ করা হবে।

এই নিলাম প্রক্রিয়া প্রায় এক মাস ধরে চলছিল বলে জানা গিয়েছে। সেখানে ১৪০ টিরও বেশি দেশ থেকে নিলামে অংশগ্রহণ করেন আগ্রহীরা। সবচেয়ে বেশি দর উঠেছিল পাঁচ মিলিয়ন ডলারের কম। তবে শনিবার নিলামেই সব রেকর্ড ছাপিয়ে যায়।

এই বিপুল পরিমাণ অর্থ কী কাজে লাগাবেন বেজোস? জানা গিয়েছে নিলামে পাওয়া এই অর্থ @clubforFuture দেওয়া হবে। এটি ব্লু অরিজিনের ফাউন্ডেশন।

উল্লেখ্য, এর আগে মহাকাশ যাত্রায় বেজোসের অন্য সঙ্গীরা হলেন মার্ক, বেজোসের ভাই এবং আরেক এক মহাকাশচারী। এবিষয়ে এই সপ্তাহের শুরুর দিকে তিনি একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্ট করেন। তাতে লেখেন, ‘জুলাই মাসের ২০ তারিখে আমার ভাইয়ের সঙ্গে আমি এই যাত্রা শুরু করবো। সবচেয়ে সেরা অভিযান, আমার প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে।’

ব্লু অরিজিন ওয়েবসাইটের তথ্য অনুসারে, পৃথিবী থেকে অনন্ত ১০০ কিমি উপরে নিয়ে যাবে নিউ শেফার্ড বুস্টার নামের মহাকাশযান। যেখানে ভরশূন্যতা উপভোগ করতে পারবেন তাঁরা। ওই ক্যাপসুলটি পরে প্যারাসুট ব্যবহার করে আবার পৃথিবীতে নেমে আসবে। ভ্রমণের স্থায়িত্ব হবে সবমিলিয়ে মাত্র ১০ মিনিট।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

Back to top button