প্রযুক্তির খবর

মাকে স্কুটারে বসিয়ে গোটা ভারতবর্ষে তীর্থ ভ্রমণে ছেলে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অন্ধ মুনির একমাত্র ছেলে সিন্ধু। তার অন্ধ বাবা ও মাকে কাধে নিয়ে তীর্থ ভ্রমণ করিয়েছিলেন। সনাতন ধর্মের রামায়ণ মহাকাব্যে তার উল্লেখ আছে। কিন্তু আধুনিক যুগে এমন পুত্র খুবই কম। বাবা মা বয়স্ক হলে পরিবারে অপ্রাসঙ্গিক হয়ে ওঠে। পরে তাদের ঠাঁই হয় বৃদ্ধাশ্রমে। কিন্তু এই দিনেও ব্যতিক্রমী অনেকেই আছে। যারা বাবা মায়ের সেবা করে নজির সৃষ্টি করেছে।

তাদের মধ্যে অন্যতম কর্নাটকের ডি কৃষ্ণ কুমার। বাবার মৃত্যুর পরে ৪০ বছর বয়সে কৃষ্ণ কুমার ৭০ বছর বয়সের মা কুন্ডা রত্নাকে ২০ বছর পুরাতন স্কুটারে বসিয়ে গোটা ভারতবর্ষের তীর্থ ভ্রমণে বেরিয়েছেন। ১৩টি রাজ্য ঘুরে উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর শহরে পৌঁছায়। কৃষ্ণ কুমার বলেন, বাবার মৃত্যুর পরে মাকে তীর্থ ঘোরাতে চাই। সে সময় মা জানায় বাড়ির কাছের তীর্থ স্থানই তার দেখা হয় নি। বুঝতে পারি সংসারের কাজের চাপে মায়ের সারা জীবনে বাইরের জগৎ দেখাই হয়নি। তাই সেদিন আমি সংকল্প করি মাতৃ সেবায় সংকল্প যাত্রার। বাবার পুরাতন স্কুটারে মাকে বসিয়ে ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারি যাত্রা শুরু করি।

জানা গেছে, ১৩টি রাজ্যে ৩৮ হাজার ৬৮৫ কিমি পথ অতিক্রম করেছে মা ও ছেলে। ইসলামপুর থেকে শিলিগুড়ি হয়ে নেপাল যাওয়ার পরিকল্পনা আছে। তার মা বলেন, আমার ছেলের মত সবাইকে করতে হবে না। কিন্তু বাড়িতে বয়স্ক বাবা মাকে সেবা যত্ন যেন সকলেই করেন।

আগাম বার্তা/এএসএমওআই

Leave a Reply

Back to top button
Close