বিনোদন

মাশরাফির কঠিন জবাবে কুপোকাত হয়ে গেলেন অস্ট্রেলিয়ার সাংবাদিকরা

বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ছবি : সংগৃহীত

স্পোর্টস ডেস্ক : নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে আজ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামছে বাংলাদেশ। বিকাল সাড়ে ৩টায় নটিংহ্যামের ট্রেন্টব্রিজে মুখোমুখি হবে দুদল। আর এই ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে অস্ট্রেলিয়ান সাংবাদিকরা মাশরাফির যেন পরীক্ষাই নিয়ে ছাড়ল। তবে তাতে জিতেছে মাশরাফিই।

অস্ট্রেলিয়ার সাথে বাংলাদেশের সুখস্মৃতি নেই খুব একটা। সেই একটি ম্যাচ জিতেছিল, সেটাই এখন পর্যন্ত একমাত্র অবলম্বন। অস্ট্রেলিয়া বিভিন্ন অজুহাতে বাংলাদেশের সাথে খেলতে চায়না সিরিজ। বাংলাদেশকে আমন্ত্রনও জানায় না। এই বিষয়গুলো তুলে মাশরাফিকে মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত করতে চেয়েছিল অজি সাংবাদিকরা। কিন্তু দক্ষ বোলার মাশরাফি যেন এখানে ব্যাট করলেন একেবারে শচীন হয়েই।

অস্ট্রেলিয়ার এক সাংবাদিকের প্রশ্ন ছিল- তোমরা তো অস্ট্রেলিয়ার সাথে একবার মাত্র জিতেছো, তাও সেই কতকাল আগে, ২০০৫ সালে। তোমার কি মনে হয়, আসলে বাংলাদেশের ক্রিকেটে উন্নতি হয়েছে? তোমরা কতটা আগে বেড়েছো?

এই প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেন- আসলে আমরা তো তোমাদের সাথে বেশি ম্যাচই খেলি না। হ্যাঁ, ২০০৫ সালে একমাত্র জয়ের সাক্ষী আমিও। আমি সে ম্যাচে ছিলাম। তবে আমার মনে হয়, তারপর আমরা যথেষ্ঠ উন্নতি করেছি। তোমাদের সাথে হয়তো জেতা হয়নি আর। তাই বলে আমরা বড় দলকে হারাইনি, সাফল্য পায়নি এমন নয়। এবারের বিশ্বকাপেও তো দক্ষিণ আফ্রিকার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জিতেছি আমরা।

মাশরাফি বলেন, এখন আমরা দল হিসেবে অনেক উন্নতি করেছি। আমাদের আত্মবিশ্বাস, সামর্থ্যের ওপর আস্থাও অনেক বেশি। দল হিসেবে অনেক পরিণত। আমরা বিশ্বাস করি, জানিও যে আমরা এখন অস্ট্রেলিয়া কেন, নিজেদের দিনে যাকে তাকে হারাতে পারি।

আরেকটি প্রশ্ন ছিল- এই যে তোমরা অস্ট্রেলিয়ার সাথে পারো না, অস্ট্রেলিয়া নানা অজুহাতে তোমাদের দেশে দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলতে যেতে চায় না। তোমাদেরও আমন্ত্রণ জানায় না। ভাবটা এমন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ড খানিক হেলাফেলা করে তোমাদের। এসব কি তোমাদের অবচেতন মনে কুড়ে খায় না? মনের ভিতরে তেমন নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে? তোমরা কি কাল অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে তার সমুচিত জবাব দিতে চাও?

মাশরাফি জবাব দেন- না না। সেটা আসলে দ্বি-পাক্ষিক বোর্ডের বিষয়। আমাদের তা নিয়ে কোন মাথা ব্যাথা নেই। ওটা দেখা আমাদের কাজও না। তবে হ্যাঁ, আমরা অস্ট্রেলিয়ায় খেলতে যেতে পারি না অনেকদিন। ১৬ বছর আগে অস্ট্রেলিয়ায় শেষ টেস্ট খেলেছিলাম আমরা। আমি তখন টেস্ট খেলি। তারপর আর ওদেশে গিয়ে টেস্ট খেলা হয়নি। তা নিয়ে একটা হতাশা আছেই। তবে আমার মনে হয় না, বিশ্বকাপে ওসব মাথায় রেখে কেউ মাঠে নামবে।

আগাম বার্তা/এসওআর

Leave a Reply

Back to top button
Close