Education

রাবির সেই তিন শিক্ষকের নিয়োগ বাতিল

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ক্রপসায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের সেই তিন শিক্ষক নিয়োগকে অবৈধ ঘোষণা করে নিয়োগ বাতিল করেছেন হাইকোর্ট। এছাড়া আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রকাশিত ২০১৬ সালের বিজ্ঞপ্তির আলোকে পুনরায় শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

|আরো খবর

  • প্রাথমিকে নিয়োগ: আদালতের দারস্থ হতে প্রস্তুত প্রার্থীরা
  • মুজিববর্ষেই প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের ১১তম ও প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড!
  • প্রাথমিকে নিয়োগ চাচ্ছেন ৫৫ হাজার প্রার্থী!

বুধবার দুপুরে বিচারপতি আশরাফুল আলম ও রাজিক আল জলিল সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের বেঞ্চ এ রায় দেয়। মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, ক্রপসায়েন্স বিভাগে সম্প্রতি যেই তিনজন শিক্ষককে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, আদালত সেই নিয়োগকে অবৈধ ঘোষণা করে বাতিল করেছেন। এছাড়া নতুন করে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিটিও বাতিল ঘোষণা করেছেন আদালত। একইসঙ্গে ২০১৬ সালে দেওয়া শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আলোকে যারা দরখাস্ত করেছিলেন, আগামী ৩০ দিনের মধ্যে তাদের নিয়োগ দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।
গত ২৬ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৯৭তম সিন্ডিকেট সভায় ক্রপসায়েন্স বিভাগে তিন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়। নিয়োগ পাওয়া তিন জন হলেন- শামসুন্নাহার, মোক্তার হোসেন ও রিজভী আহমেদ।
উল্লেখ্য, পূর্ববতী শিক্ষক নিয়োগ নীতিমালা অনুযায়ী ২০১৬ সালে ক্রপসায়েন্স বিভাগে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছিলো। সেখানে ৩৮ জন আবেদন করেন। উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্য হয়ে শিক্ষক নিয়োগের যোগ্যতা শিথিল করে এবং ক্রপসায়েন্স বিভাগের পুনঃসংশোধিত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ২০১৯ সালের ৩০ জুলাই। সেখানে ৪৭ জনের আবেদন পত্র জমা হয়।
পরে বিভাগের শিক্ষক ও প্ল্যানিং কমিটির সদস্য অধ্যাপক আলী আসগর নিয়োগ প্রক্রিয়ার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে একটি রিট করেন। যার প্রেক্ষিতে গত বছরের ২১ আগস্ট নিয়োগ প্রক্রিয়া কেন অবৈধ হবে না জানতে চেয়ে হাইকোর্ট একটি রুল জারি করে।
বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে
সূত্রঃ বাংলাদেশ জার্নাল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close