offbeat news

শুরু হলো মহাকুম্ভ, ৮৩ বছর পর অদ্ভুত যোগ

নয়া দিল্লি: আজ থেকে হরিদ্বারে শুরু হলো ঐতিহাসিক কুম্ভ মেলা। তবে মহামারীকে মাথায় রেখে এবার রয়েছে কড়া নিরাপত্তা ও প্রশাসন রীতিমতো কড়া হাতে সামলাচ্ছে কুম্ভ মেলার পরিস্থিতি। এবার পুণ্যার্থীদেরকে ৭২ ঘন্টা আগে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে। তবেই তাদের জন্যে মিলবে মেলায় প্রবেশাধিকার। বলা হয় যে গোটা পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে বড়ো ধার্মিক অনুষ্ঠান হলো এই কুম্ভ মেলা। ভারতে প্রতি ১২ বছর অন্তর হরিদ্বার, প্রয়াগরাজ, উজ্জ্বয়িনী ও নাসিকে আয়োজন করা হয় এই কুম্ভ মেলার। তবে এবার কুম্ভ মেলার ইতিহাস অন্যরকম। এই প্রথমবার হরিদ্বারে ১২ বছরের জায়গায় ১১ বছর পর অনুষ্ঠিত হচ্ছে কুম্ভ মেলা। তবে এবারের

এই মেলা একেবারেই আলাদা কারণ এর রয়েছে অন্যরকম তাৎপর্য। এক বিশেষ যোগ এবার রয়েছে সেখানে।
এবার নাকি দেখা দিয়েছে অমৃত যোগ। কাল গণনা করে এই অমৃত যোগ নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। আসলে কুম্ভ রাশির গুরু আর্য সূর্যতে রূপান্তরিত হলেই এই যোগ দেখা যায়। তবে এবার গুরু কুম্ভ রাশিতে থাকবেন না। তাই এবার ১১ বছর পর এই দিনটি পড়েছে। প্রায় ৮৩ বছর পর এই যোগ এসেছে। এর আগে এই বিশেষ যোগ দেখা গিয়েছিলো যথাক্রমে ১৭৬০, ১৮৮৫ এবং ১৯৩৮ সালে।

অন্যান্য বছরের মতো এই বছরও হাজার হাজার পুণ্যার্থী আসবেন হরিদ্বারের এই পবিত্র গঙ্গাস্নানে। তবে করোনাকে মাথায় রেখে এই বছর সরকার বিশেষ সুরক্ষা ব্যবস্থা রেখেছে সেখানে। এবার কুম্ভ মেলায় হবে ৪টি শাহী স্নান ও ১৩টি আখড়া বসানো হবে। ঝাঁকি বের হবে এখান থেকেই। সেই শোভাযাত্রায় সবার প্রথমে থাকবেন নাগা বাবা ও তারপর মহন্ত, মণ্ডলেশ্বর, মহামণ্ডলেশ্বর এবং আচার্য মহামণ্ডলেশ্বর সেই নাগা সাধুদের অনুসরণ করবেন। জেনে নিন শাহী স্নানের তিথি।

১. সোমবতী অমাবস্যা: ১২ ই এপ্রিল, ২০২১
২. বৈশাখী: ১৪ ই এপ্রিল, ২০২১
৩. রাম নবমী: ২১ শে এপ্রিল, ২০২১
৪. চৈত্র পূর্ণিমা: ২৭বা শে এপ্রিল, ২০২১

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।

Back to top button