offbeat news

সমুদ্রের গভীরে ১৪ শুঁড়ের আরশোলা জাতীয় প্রাণী, অভিনব আবিষ্কার ভারতীয় বিজ্ঞানীদের

নয়াদিল্লি : সায়েন্স ফিকশনকেও হার মানাবে। ভারত মহাসাগর থেকে উদ্ধার হল এমন এক প্রাণী, যা সিনেমার পর্দায় দেখা গেলেও বিশ্বাসযোগ্য হত না। আরশোলার এক নতুন প্রজাতি উদ্ধার করা হয়েছে, যার চোদ্দটি পা বা শুঁড়। অনেকটা হলিউডি মুভি স্টার ওয়ার্সের চরিত্র ডার্ট ভেডারের মত দেখতে এই প্রাণীটিকে।
সিঙ্গাপুরের গবেষকরা প্রাণীটি আবিষ্কার করেন। জাভা দ্বীপপুঞ্জের বানটেন উপকূলে এই অদ্ভুত দর্শন আরশোলা প্রজাতির প্রাণীটিকে উদ্ধার করেন তাঁরা। গভীর সমুদ্রে সমীক্ষা চালানোর জন্য ঘুরছিলেন একদল গবেষক, তখনই এই প্রাণীটিকে দেখতে পাওয়া যায়।
২০১৮ সালে প্রথম বার এই প্রাণীর দর্শন মেলে। এর নাম দেওয়া হয় বাথেনমাস রাকসাসা। সার্ভে টিমের প্রধান ছিলেন পিটার। ৬৩টি এলাকা ঘুরে সমীক্ষা চালাচ্ছিলেন তাঁরা। দু সপ্তাহ আগে এই আবিষ্কার হয়। এই সার্ভের জন্য উদ্যোগ নিয়েছে ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ সিঙ্গাপুর ও ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্সেস।

সমুদ্রের প্রায় ৮০০ মিটার গভীরে খনন কার্য চালিয়ে নমুনা সংগ্রহ করছিলেন তাঁরা। কিছু নমুনা মিলছিল সমুদ্রের ২১০০ মিটার গভীর থেকেও। জেলি ফিস, কাঁকড়া, আর্চিনস, নানা রকম পোকা, স্টার ফিশ, নানা রকমের মাছের নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছিল। প্রায় ৮০০ ধরণের নমুনা মেলে। আশ্চর্যজনকভাবে ১২ ধরণের প্রজাতি মেলে, যারা একেবারেই নতুন। বিজ্ঞানের খাতায় যাদের কোনও রেকর্ড নেই।

বাথেনমাস রাকসাসাকে বলা হয় জায়েন্ট আইসোপোড। সাধারণত আরশোলার মত দেখতে এই প্রাণীর প্রজাতির সঙ্গে মিল রয়েছে কাঁকড়া ও ছোট চিংড়ির। আরশোলার মতো দেখতে এই প্রাণীটি দীর্ঘদিন না খেয়ে বেঁচে থাকতে পারে বলে জানাচ্ছেন গবেষকরা। প্রায় ২০ ইঞ্চি লম্বা আইসোপডটি আবিষ্কার হওয়া নমুনার মধ্যে দ্বিতীয় বৃহত্তম।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close