Economy

সামাজিক সুরক্ষা আওতায় আসছে ১ কোটি মানুষ

গোলাম সামদানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবিলায় আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে সামাজিক সুরক্ষার আওতা বাড়ানো হচ্ছে। সেজন্য চলতি অর্থবছরের বাজেট থেকে আগামী বাজেটে বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে এক হাজার ৬৩৩  কোটি টাকা। পাশাপাশি সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় আর্থিক সুবিধাভোগীর সংখ্যা ৮১ লাখ থেকে বাড়িয়ে প্রায় ১ কোটিতে উন্নীত করা হচ্ছে। আসছে বাজেটে এই খাতে বরাদ্দের পরিমাণ ৭৪ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে ৭৬ হাজার কোটি টাকা করা হচ্ছে। অর্থ ও সমাজকল্যান মন্ত্রণালয় সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

জানতে চাইলে সমাজকল্যাণ সচিব মোহাম্মদ জয়নুল বারী সারাবাংলাকে বলেন, করোনার প্রভাব মোকাবিলার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে আগামী ২০২০-২০২১ অর্থবছরের বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তার আওতায় সুবিধাভোগীর সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই সংখ্যা বিদ্যামান সুবিধাভোগীর সংখ্যার চেয়ে কমপক্ষে ২০ শতাংশ বাড়ানোর পরিকল্পনা চূড়ান্ত হয়েছে। শেষ মুহূর্তে এই সংখ্যা আরও বাড়তেও পারে। তবে এটা ২০ শতাংশের চেয়ে কম হবে না।
তিনি আরও বলেন, চলতি বাজেটে সামাজিক সুরক্ষার আওতায় ৮১ লাখ মানুষ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে সুবিধা পাচ্ছেন। আগামী অর্থবছরে আমরা যদি ২০ শতাংশ বাড়াতে পারি, তাহলে অতিরিক্ত ১৬ থেকে ১৭ লাখ দরিদ্র মানুষকে এর আওতায় আনা সম্ভব হবে। এর মাধ্যমে প্রায় এক কোটি দরিদ্র জনগোষ্ঠী এই সুবিধার আওতায় চলে আসবেন।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সাধারণত প্রতিবছর সামাজিক সুরক্ষা খাতে সুবিধাভোগীর সংখ্যা ১০ শতাংশ করে বাড়ানো হয়। করোনাভাইরাসের প্রভাবে আগামী অর্থবছরের মেয়াদে দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বাড়বে বলে আঙ্কা রয়েছে। তাই আসছে বাজেটে সামাজিক সুরক্ষা খাতে সুবিধাভোগীর সংখ্যা এবার প্রথমবারের মতো ২০ শতাংশ বাড়ানো হচ্ছে। সে হিসাবে চলতি বাজেটে এই খাতে বরাদ্দ ৭৪ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা থেকে ১ হাজার ৬৩৩ কোটি টাকা বাড়িয়ে ৭৬ হাজার কোটি টাকাও করা হচ্ছে। তবে আসছে বাজেটে সুবিধাভোগীর সংখ্যা ও বরাদ্দ বাড়লেও সুবিধার পরিমাণ বাড়ানো হচ্ছে না। চলতি বাজেটে সুবিধাভোগীরা যে পরিমাণ সহায়তা পেতেন, আগামী অর্থবছরেও একই হারে পাবেন বলে জানা গেছে।
দেশের গরিব ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে সব ধরনের সহায়তা করার ব্যবস্থাই হলো সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী। সরকারের দারিদ্র্য বিমোচন কৌশলপত্রে ১৪টি সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি চিহ্নিত করা হয়েছে। বর্তমানে বিভিন্ন কর্মসূচির আওতায় সামাজিক নিরাপত্তা খাতে সুবিধাভোগীর সংখ্যা ৮১ লাখ। আগামী বাজেটে ২০ শতাংশ বাড়ানো হলেও এই সংখ্যা আরো ১৬ লাখ ২০ হাজার বেড়ে যাবে। সে হিসাবে বাজেটে সামাজিক সুরক্ষা হাতে সুবিধাভোগীর সংখ্যা হবে ৯৭ লাখ ২০ হাজার জন।
সূত্র জানায়, বর্তমানে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় দুই লাখ মুক্তিযোদ্ধা প্রতিমাসে ১২ হাজার টাকা করে সম্মানি ভাতা পাচ্ছেন। এছাড়াও তারা উৎসব ভাতা ১০ হাজার, নববর্ষ ভাতা হিসেবে দুই হাজার এবং বিজয় দিবস ভাতা পাঁচ হাজার টাকা করে পাচ্ছেন। চলতি বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ দুই হাজার ৬০০ কোটি টাকা।
চলতি বাজেটে প্রায় ৪৪ লাখ লোক প্রতিমাসে ৫০০ টাকা হারে বয়স্ক ভাতা পাচ্ছেন। আগামী বাজেটে এই সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে। এছাড়াও ১৭ লাখ বিধবা ও স্বামী নিগ্রহের শিকার নারী প্রতিমাসে ৫০০ টাকা হারে ভাতা পাচ্ছেন। আগামী বাজেটে এ খাতেও উপকারভোগীর সংখ্যা বাড়ছে।
অন্যদিকে চলতি অর্থবছরে ১০ লাখ অসচ্ছল প্রতিবন্ধীকে প্রতিমাসে ৭০০ টাকা করে ভাতা দেওয়া হচ্ছে। আগামী বাজেটে এদের সংখ্যাও বাড়ানো হবে। বিভিন্ন স্তরে এক লাখ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী বিভিন্ন হারে ভাতা পাচ্ছেন। আগামী বাজেটে এ সংখ্যাও বাড়ানো হবে।
আওয়ামী লীগ সরকার টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পর এবার দ্বিতীয়বারের মতো বাজেট দিতে যাচ্ছে। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালেরও এটি দ্বিতীয় বাজেট। আগামী ১১ জুন জাতীয় সংসদে বাজেট উপস্থাপনের কথা রয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরের এই বাজেটের সম্ভব্য আকার ধরা হচ্ছে ৫ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) চূড়ান্ত হয়েছে।

সারাবাংলা/জিএস/টিআর

সূত্রঃ সারাবাংলা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close