International

সীমান্তে ক্রমশই বাড়ছে উত্তেজনা, উদ্বেগ প্রকাশ অস্ট্রেলিয়ার

নয়াদিল্লি : যে কোনও পরিস্থিতিতেই ভারতের পাশে ছিল অস্ট্রেলিয়া। সেই দেশ এবার চিনের আগ্রাসনের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বার্তা পাঠাল। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বুধবার বলেন ইন্দো প্যাসিফিক রিজিয়নে উত্তেজনা বাড়ছে। যেভাবে বিভিন্ন দেশের সীমান্তে চিন উত্তাপ বাড়াচ্ছে, তা পারস্পরিক সম্পর্কের সুস্বাস্থ্যের পক্ষে সুখকর নয়।
ভারত-চিন দ্বন্দ্ব, দক্ষিণ চিন সাগরে চিনের বাড়বাড়ন্ত, পূর্ব চিন সাগরে সেদেশের নাকগলানোর মনোবৃত্তি সম্পর্কের অবনতি ঘটাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী।
এদিকে, চিনা আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে বিশ্বের তাবড় দেশ। রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও। আমেরিকার সেক্রেটারি অফ স্টেট মাইক পম্পেও এদিন দাবি করেছেন চিন সঠিক পথে এগোচ্ছে না। চিনের আগ্রাসন নীতি এই সময়ের ভিয়েতনামের বিদেশমন্ত্রক অভিযোগ করেছিল সেদেশের মৎস্যজীবীদের নৌকায় হামলা চালায় চিনা নৌবাহিনীর জাহাজ। দক্ষিণ চিন সাগরে এই ঘটনা ঘটে। পার্সেল আইল্যান্ডের কাছে এই হামলার শিকার হয় ভিয়েতনামের মৎস্যজীবীদের নৌকা।
উল্লেখ্য এই দ্বীপকে চিন নিজেদের অংশ বলে দাবি করে। এপ্রিল মাসেও একই অভিযোগ করেছিল ভিয়েতনাম। জাপানও চিনা উস্কানির অভিযোগ আনে। টোকিও জানায়, চিন ৬৬ দিন ধরে সেনকুকু দ্বীপপুঞ্জের সামনে নিজেদের নৌবাহিনী মোতায়েন রাখে। পূর্ব চিন সাগরের ওপর এই দ্বীপ জাপানের এক্তিয়ারভুক্ত।

একই অভিযোগ আনে ইন্দোনেশিয়াও। চিন জলসীমা নিয়ে ক্রমাগত উত্যক্ত করছে বলে অভিযোগ সেদেশের। এদিকে, পূর্ব লাদাখে চিনের আগ্রাসন নীতির ফল ভুগতে হবে চিনকেই। খুব ভুল সময়ে লাদাখে ভারতীয় সেনার ওপরে হামলা চালিয়েছে চিন। গোটা বিশ্বের কাছে নিজের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে। গোটা বিশ্বই ক্ষুব্ধ চিনের ওপর। এমনই মত প্রকাশ করেছিলেন রণকৌশল বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়ে ছিলেন, পূর্ব লাদাখে কি হয়েছে, বিশ্বের সব দেশই তা জানে। দক্ষিণ চিন সাগর থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রে বিশেষত সীমান্ত নিয়ে কার্যকলাপের ক্ষেত্রে চিনের দাদাগিরি কেউই বরদাস্ত করবে না। বেজিংয়ের যুদ্ধবাজ চেহারাটা বেরিয়ে পড়েছে। এই বিশেষজ্ঞরা আরও জানাচ্ছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গেও বালো সম্পর্ক নেই চিনের।
হংকংয়ের স্বাধীকার নিয়ে মার্কিনী চাপে বেশ সমস্যায় চিন। অন্যদিকে, করোনা পরিস্থিতিতেও প্রায় একঘরে বেজিং। প্রাক্তন সেনা আধিকারিক লেফটেন্যান্ট জেনারেল গুরমিত সিংয়ের মতে চিন নিজেই নিজের শত্রু হয়ে উঠেছে। এরওপর লাদাখে চিনা সেনার আগ্রাসন বুমেরাং তৈরি করবে চিনের সামনে।

কলকাতার ‘গলি বয়’-এর বিশ্ব জয়ের গল্প

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close