আন্তর্জাতিক

সেই ৯/১১-এই রকেট হামলা কাবুলের মার্কিন দূতাবাসে – আগাম বার্তা

কাবুল: ১৮ বছর আগে এরকমই একটা দিনে একটি বিমান খেলনার মত গুঁড়িয়ে দিয়েছিল ওয়ার্ড ট্রেড সেন্টার। হামলা হয় পেন্টাগনেও। সেই স্মৃতি উস্কে, এবার হামলা কাবুলের মার্কিন দূতাবাসে। মঙ্গলবার গভীর রাতে আফগানিস্তানে ওই মার্কিন দূতাবাসে হামলা রকেট হামলার ঘটনা ঘটেছে।

এদিন রাত ১২ টা নাগাদ আচমকা সাইরেন শোনা যায়। দূতাবাস চত্বরে ঘোষণা করা হয়, রকেট হামলায় বিস্ফোরণ হয়েছে। তখন ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছিল চারদিক। কিছুক্ষণের মধ্যেই ছুটে আসে নিরাপত্তা বাহিনী। ঘিরে ফেলা হয় ওই এলাকা। ঘণ্টাখানেক পরই জানানো হয় যে হতাহতের কোনও খবর নেই।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তালিবানিদের সঙ্গে শান্তি আলোচনা বাতিল ঘোষণা করার পর এই ধরনের হামলা এই প্রথম। গত সপ্তাহে কাবুলে দু’টি ভয়াবহ গাড়ি বোমা হামলায় দুই ন্যাটো সদস্যসহ বেশ কয়েকজন সাধারণ মানুষ নিহত হন। এ ঘটনার জেরেই তালিবানের সঙ্গে শান্তি আলোচনা বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ট্রাম্প।

শুরুর দিকে আফগানিস্তানে প্রায় এক লক্ষ মার্কিন সেনা মোতায়েন করা হয়। লাদেনকে হত্যা করার পর এই সংখ্যা কমতে শুরু করে। বর্তমানে আফগানিস্তানে ১৪ হাজার মার্কিন সেনা রয়েছে। এসব সেনা প্রত্যাহারের বিষয়েই তালিবানের সঙ্গে ওয়াশিংটনের আলোচনা চলছিল।

নিউ ইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারসহ তিনটি স্থানে ভয়াবহ হামলার ১৮ বছর পূর্তি বুধবার। ২০০১ সালের এরকম দিনেই আমেরিকার চারটি বিমান হাইজ্যাক করে হামলা চালায় আল কায়েদা জঙ্গিরা। এরমধ্যে তিনটি বিমান লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করে, আরেকটি ভেঙে পড়ে ফাঁকা মাঠে।

১৮ বছর আগে সেই হামলায় নিহত হন ৭৮টি দেশের মোট ২ হাজার ৯৯৬ জন মানুষ। শুধু ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে চালানো দু’টি হামলায় প্রাণ হারান ২ হাজার ৭৬৩ জন। পেন্টাগনে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অফিসে হামলায় নিহত হন উড়োজাহাজের ৬৪ আরোহীসহ ১৮৯ জন। আর এই আফগানিস্তানে তালিবানই আশ্রয় দিয়েছিল ওই হামলার মাস্টারমাইন্ড ওসামা বিন লাদেন ও সহ অন্যান্য জঙ্গিদের। আর ১১ সেপ্টেম্বর আফগান রাজধানীতে একটি স্পর্শকাতর দিন হিসেবেই চিহ্নিত হয়।

Leave a Reply

Back to top button
Close