প্রযুক্তির খবর

সোনা দিয়ে তৈরী গ্রহাণুর সন্ধান পেল নাসা

ফিচার ডেস্ক:
নাসা এমন একটি গ্রহাণুর খোঁজ পেয়েছে যার কথা শুনলে চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যাবে! সোনা ও বেশকিছু অতি মূল্যবান ধাতু দিয়ে গঠিত গ্রহাণুটি। নাম ‘১৬ সাইকি’। সেখানে কীভাবে যাওয়া যায় তার পরিকল্পনাও ইতিমধ্যে শুরু করে দিয়েছে নাসা।
তবে সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয়, গ্রহাণুটির মধ্যে যে খনিজ পদার্থ ও ধাতু রয়েছে, তার মূল্য বিশ্বের বাজারে ৭০০ কুইন্ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার! অর্থাৎ ৭ এর পেছনে ২০টা শূন্য বসালে যা হয়। যা ভাগ করে দেয়া হলে পৃথিবীর প্রতিটি মানুষ প্রায় ৯৩ বিলিয়ন ডলার করে পাবেন। অর্থাৎ প্রত্যেকেই কোটিপতি হয়ে যাবে।
তবে এটি ভালো খবর নয়, এর একটি খারাপ দিকও রয়েছে। কারণ গ্রহাণু থেকে উত্তোলিত সোনা ও অতি মূল্যবান ধাতু যদি পৃথিবীর সকল মানুষের মধ্যে ভাগ বাটোয়ারা করে দেয়া হয়, তবে তা আর মূল্যবান থাকবে না।
অর্থনীতির ছাত্রছাত্রীরা অবশ্যই জানবেন, দাম ও আপেক্ষিক ঘাটতির একটি সম্পর্ক রয়েছে। বাজারে সোনার সরবরাহ বেড়ে গেলে তার দাম পড়ে যাবে। তখন সোনা আর আগের মত মূল্যবান থাকবে না।
সুতরাং ১৬ সাইকি গ্রহাণু থেকে সোনা ও অতি মূল্যবান ধাতু যদি উত্তোলন করে পৃথিবীতে নিয়ে আসাও হয়, মানুষের খুব বেশি লাভ হবে বলে মনে হয় না।
২২ হাজার প-র্ন সাইট বন্ধ করেছি: মোস্তাফা জব্বার
ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, সামাজিক বি-শৃংখলা ও সাইবার অপরাধ রোধে সরকার ২২ হাজার প-র্ন সাইট, কয়েক হাজার স্যায়ার ডোয়্যার সাইট বন্ধ, ফেসবুক ও ইউটিউবে নোংরা ও অশ্লী-ল উপাত্ত অপসারণ, টিকটক অ্যাপ বন্ধ করা হয়েছে।
ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়টি সারাবিশ্বের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর আওতায় তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগে ইতোমধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা সংস্থা স্থাপিত হয়েছে।
তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে সমস্যাগুলোর মুখোমুখি আমরা হচ্ছি, এগুলো বাংলাদেশের আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় না। এটা আমাদের সমাজ সংস্কৃতি ও প্রচলিত সমাজ ব্যবস্থার স্ট্যান্ডার্ড অনুযায়ী পরিচালিত হয় না। এটি মূলত আমেরিকান স্ট্যান্ডার্ড অনুযায়ী পরিচালিত হয়। তাদের বাংলাদেশে কোনো অফিসও নেই। এ কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেসব কন্টেন্ট রয়েছে, এগুলোতে সরকার হস্তক্ষেপ করতে পারে কি না, বা অপসারণ করতে পারে কি না, এ বিষয়টি এখন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।
মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা বিধানের লক্ষ্যে সরকার টেলিকম বিভাগে সাইবার সিকিউরিটিজ নামে একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। আগামী সেপ্টেম্বর-অক্টোবর নাগাদ এই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে। এরপর বর্তমান পরিস্থিতি আর বিরাজ করবে না।

Leave a Reply

Back to top button
Close