Islam

হাজার হাজার সাহাবি শুয়ে আছেন জান্নাতুল বাকিতে

জান্নাতুল বাকি পবিত্র ম’দিনার একটি বিখ্যাত কবরস্থানের নাম। এ কবরস্থানটি ম’সজিদে নববীর পূর্ব দিকে অবস্থিত। কিন্তু কোনো কবর চিহ্নিত নেই। রাসূলুল্লাহ (সা.) এর পরিবারের অধিকাংশ সদস্য স্ত্রী’, কন্যা, ছেলে ও অন্য আত্মীয়-স্বজন থেকে শুরু করে হাজার হাজার সাহাবির কবর রয়েছে জান্নাতুল বাকিতে। ই’মাম মালিক (রহ.)-এর মতে জান্নাতুল বাকিতে প্রায় দশ হাজার সাহাবির কবর রয়েছে।

রাসূলুল্লাহ (সা.) প্রায়ই শেষ রাতে জান্নাতুল বাকিতে যেতেন এবং দোয়া করতেন। দোয়ায় নবী করিম (সা.) বাকি কবরবাসীদের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করতেন। কবর জিয়ারত করা প্রত্যেক স্থানেই শরিয়তসম্মত। এ বিষয়ে রাসূলুল্লাহ (সা.) হাদিসে ইরশাদ করেছেন, ‘তোম’রা কবর জিয়ারত করো, কেননা তা তোমাদের মৃ’ত্যুকে স্ম’রণ করিয়ে দেবে।’ –সহিহ মু’সলিম জান্নাতুল বাকিতে যাদের কবর রয়েছে তন্মধ্যে- নবী কন্যা হ’জরত ফাতেমা (রা.),

ইস’লামের তৃতীয় খলিফা হ’জরত উসমান (রা.), উম্মুল মুমিনিন হ’জরত আয়েশা (রা.), নবীর চাচা হ’জরত আব্বাস (রা.), নবী পুত্র হ’জরত ইবরাহিম (রা.), নবী দৌহিত্র হ’জরত হাসান (রা.), হ’জরত উসমান ইবনে মজউন (রা.), নবী কন্যা হ’জরত রোকাইয়া (রা.), ইস’লামের চতুর্থ খলিফা হ’জরত আলী (রা.), বিখ্যাত সাহাবি হ’জরত আবদুর রহমান ইবনে আউফ (রা.), হ’জরত সাআদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস (রা.), হ’জরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.), নবীর দুধমা হ’জরত হালিমা সাদিয়া (রা.) প্রমুখের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

ম’দিনায় অবস্থানরত হ’জপালনকারীদের মৃ’ত্যু হলে এই কবরস্থানে দাফন করা হয়। সেই সঙ্গে ম’দিনাবাসীরা এখানে দাফনের সুযোগ পান। এখনও প্রতিদিন এখানে লা’শ দাফন করা হয়। তবে বাকি কবরস্থানের শুরুর অংশে এখন আর নতুন করে কাউকে কবর দেয়া হয় না। কারণ এসব অংশেই রয়েছে সাহাবাদের কবর। জান্নাতুল বাকী’ জিয়ারতের জন্য ফজর ও আসরের নামাজের পর খুলে দেয়া হয়।

তখন শুধু পুরুষরা জিয়ারতে জন্য ভেতরে যেতে পারেন। কারণ, নারীদের জন্য ইস’লামি শরিয়তে কবর জেয়ারত করা বৈধ নয়। ইস’লামি স্কলারদের মতে, জান্নাতুল বাকিতে সমাহিতদের প্রতি সালাম দেয়ার সুন্নত পদ্ধতি হলো- অনির্দিষ্টভাবে সবাইকে একসঙ্গে সালাম দেয়া ও তাদের জন্য দোয়া করা। ম’দিনার বয়স্ক ও অনুসন্ধানীদের কাছে জিজ্ঞেস করলে দু’একটি কবরের কথা তারা বলতে পারেন। যেমন, জান্নাতুল বাকিতে প্রবেশের মুখে আলাদা করে ঘেরাও করে রাখা কবর দু’টো।

এই দুই কবরের একটি হ’জরত ফাতেমা (রা.)-এর, অ’পরটি হ’জরত আয়েশা (রা.)। আর বাকি কবরস্থানের শেষের দিকে রয়েছে ইস’লামের তৃতীয় খলিফা হ’জরত উসমান (রা.)-এর কবর।-সূত্র: অনলাইন থেকে সংগৃহীত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close