বিনোদন

হুমায়ূন আহমেদের ৭ম প্রয়াণ দিবস আজ

আগামবার্তা ডেস্ক: জননন্দিত লেখক-নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদ নিউ ইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০১২ সালের ১৯ জুলাই বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১১টায় শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার প্রয়াণে পুরো দেশে নেমে আসে শোকের ছায়া। তার মরদেহ দেশে আনা হয় ২৩ জুলাই। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে লাখো মানুষের অশ্রু-পুষ্প ও ভালোবাসায় সিক্ত হন। তাকে সমাহিত করা হয় তারই গড়ে তোলা নন্দনকানন নুহাশপল্লীর লিচুতলায়। আজ ১৯ জুলাই কিংবদন্তি কথাসাহিত্যিক ও নির্মাণের মহান কারিগর হুমায়ূন আহমেদের ৭ম প্রয়াণ দিবস। ৭টি বছর কেটে গেলেও এখনো বিষাদের ছায়া সরেনি কোটি কোটি হুমায়ূন ভক্ত পাঠক-দর্শকের হৃদয় থেকে। নুহাশপল্লীর সবুজ মাঠ, দীঘি লীলাবতীর জল, ঔষধি বাগান, ছাতিম গাছের ছায়া, লেখার টেবিল, দেয়ালে টানানো প্রিয় ফটোগ্রাফি কিংবা বুক শেলফে সাজানো শতশত বই- সবই আছে সেই আগের মতোই। শুধু নেই প্রিয় হুমায়ূন আহমেদ।

আরো পড়ুন: ক্যাটরিনার পছন্দে ক্ষুব্ধ সালমান!

এদিনে তারই হাতেগড়া নুহাশপল্লী সেজেছে বিষাদের সজ্জায়। তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় করা হয়েছে বেশকিছু আয়োজন। থাকছে কোরআনখানি, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল। নুহাশপল্লীর আশেপাশের মাদ্রাসা ও এতিমখানার ছাত্র, পরিবারের সদস্য এবং হুমায়ূন আহমেদের ঘনিষ্ট কয়েকজন লেখকসহ ৫ শতাধিক লোককে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে এ মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে। নুহাশপল্লীর ব্যবস্থাপক সাইফুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ‘আজকের কর্মসূচিতে অংশ নিতে হুমায়ূন আহমেদের দুই সন্তান নিষাদ ও নিনিতসহ স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন নুহাশপল্লীতে আসবেন। এছাড়া কথাসাহিত্যিকের পরিবারের লোকজন, ভক্ত, বন্ধুরা কবর জিয়ারত ও মিলাদে অংশ নেবেন।’ এছাড়া প্রতি বছরের মতো এবারও ভক্ত এবং অনুরাগীরা ফুলেল শুভেচ্ছা এবং দোয়া কামনার মাধ্যমে লেখকের প্রতি জানাবেন। জাতীয় পত্রিকাগুলো তাকে নিয়ে প্রকাশ করেছে নানান প্রতিবেদন। এছাড়া টিভি চ্যানেলগুলো নাটকসহ নানান আয়োজনে তার প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা জানাবে। এসএল/এএইচ

Leave a Reply

Back to top button
Close