Entrepreneur

১০ হাজার টাকার পুঁজিতেও সফলতা আসে

উদ্যোক্তা – আকিক আহমেদ

একটি শিশু যেমন এক দিনে হাঁটতে শেখে না তেমনি সফলতা হঠাৎ করে আসে না। ব্যর্থতার পরই আসে সফলতা। প্রতি বছর অনেক বড় বড় স্বপ্ন নিয়ে অনেক তরুণ স্নাতক সম্পন্ন করে । তাদের মধ্যে অনেকে ক্যারিয়ার গঠনের জন্য বিভিন্ন সরকারি, বেসরকারি চাকরির পেছনে ছোটে আবার কেউ স্বপ্ন দেখে নিজে প্রতিষ্ঠানের মালিক, নতুন কিছুর উদ্ভাবক অথবা উদ্যোক্তা হওয়ার। তাদের মধ্যে ছিলেন আকিক আহমেদ একজন, যে নিজেকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেছিল উদ্যোক্তা হওয়ার।

আকিক আহমেদ পড়াশোনা করেছেন ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ইউ আই ইউ) মার্কেটিং বিভাগে। চাকরি করার পাশাপাশি করছেন ব্যবসা এবং সফল উদ্যোক্তা। উদ্যোক্তা হয়েছেন নিজের স্বাধীনতার জন্য এবং নিজের আত্মবিশ্বাস নিয়ে কাজ করে সফল হওয়ার জন্য; হয়েছেনও তাই।

চাকরির জন্য বসে না থেকে ব্যবসা করাকেই বুদ্ধিমানের কাজ বলে মনে করেন আকিক। আকিক খুব ছোট পরিসরে ব্যবসা শুরু করেছিলেন। ‘স্বাক্ষর’ এবং ‘দি মেমেন্টো’ (The Memento) দুইটি পেজ নিয়ে ২০১৬ সালে শুরু করেন ব্যবসা। মাত্র ১০ হাজার টাকা পুঁজি নিয়ে শুরু করেন আকিক এবং বর্তমানে ১ লাখের বেশী মূলধন তার। ‘স্বাক্ষর’ নাম দেওয়ার কারণ প্রতিটি পণ্যে এবং বাজারে একটা নিজস্ব চিহ্ন রাখার জন্য।

‘স্বাক্ষর’ এবং ‘দি মেমেন্টোতে’ পাওয়া যায় মাটির বিভিন্ন কারুকাজের শো-পিস, ড্রেস, বাচ্চাদের নকশি কাঁথা, বিভিন্ন ধরনের উপহার সামগ্রী। যার সর্বনিম্ন মূল্য ৮০ টাকা এবং সর্বোচ্চ মূল্য ৪ হাজার টাকা।

আকিক উদ্যোক্তা বার্তাকে বলেন, ব্যবসা করতে গিয়ে প্রথম দিকে বেশ কিছু বাধার সম্মুখীন হয়েছি যেমন বুস্টিং কার্ড, পণ্য আনা নেওয়া, সংরক্ষণ ইত্যাদি কিন্তু বাধা পেলেও থেমে থাকিনি সব কিছু সামলিয়ে সামনের দিকে চলেছি।

পারিবার থেকে মা এবং বোনের সহযোগিতা পেয়েছেন আকিক। আকিকের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা বলতে গিয়ে উদ্যোক্তা বার্তাকে বলেন, তার এই ব্যবসা দুটি ‘স্বাক্ষর’ এবং ‘The Memento’ একদিন ব্র্যান্ড আউটলেটে পরিণত হবে।ক্রেতাদের থেকে বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছেন আকিক। বর্তমানে আকিক আরো তিন জন মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছেন। বেসিস থেকে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপর।

নতুন Agambartaদের উদ্দেশ্যে আকিক আহমেদ বলেন, চাকরি হচ্ছে না এতে হতাশ হওয়ার কোন কারণ নাই। অল্প পুঁজি নিয়ে নিজে কিছু একটা শুরু করেন। যেটি আপনাকে দেবে স্বাধীনতা, সাপোর্ট এবং সাহস।

আপনার চাকরি না হলেও আপনি বেশ কয়েকজনের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে পারবেন তা থেকেই উপযুক্ত শিক্ষা পাওয়া যায়। তাই ব্যর্থতাকে সহজভাবে নিন। মনে রাখবেন, এই ব্যর্থতা অস্থায়ী। ধারাবাহিকভাবে আত্মনিয়োগের মাধ্যমে এই ব্যর্থতা অতিক্রম করা সম্ভব। এই জন্য চাই মানসিক শক্তি ও ধৈর্য।

পৃথিবীতে যারা উন্নতির চরম শিখরে অবস্থান করছেন তাদের ঐ অবস্থানের পেছনে রয়েছে হাজারো ব্যর্থতা এবং সেই ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন করে এগিয়ে গিয়ে হয়েছেন সফল। 

 

খাদিজা খাতুন স্বপ্না

Leave a Reply

Back to top button
Close