International

১৪ বছরের কিশোরীকে বিয়ে, পাক সাংসদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু

ইসলামাবাদ : পাকিস্তানের সাংসদ মৌলানা সালাহউদ্দিন আয়ুবির বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করল সেদেশের পুলিশ। ১৪ বছরের কিশোরীকে বিয়ে করার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। এই প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছে সেদেশের পুলিশ। বালোচিস্তানের সাংসদ এই মৌলানা জামিয়ত উলেমা এ ইসলামের নেতা। পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে মনোনীত জনপ্রতিনিধি তিনি। এন-এ (কিলা আবদুল্লা) আসনে জয়ী প্রার্থী আয়ুবির বিরুদ্ধে শুরু হয়েছে তদন্ত।

পাকিস্তানের চিত্রালের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা প্রথম এই বিষয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগে জানানো হয় এক নাবালিককে জোর করে বিয়ে করেছেন ওই সাংসদ। তার বয়স থেকে চার গুণ বেশি বয়েসী ওই সাংসদের এই কীর্তিতে ক্ষুব্ধ বালোচিস্তানের সাধারণ মানুষ। ইতিমধ্যেই গোটা ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছে। চিত্রাল থানার পুলিশ আধিকারিক সাজ্জাদ আহমেদ জানান ওই নাবালিকা সরকারি স্কুলের পড়ুয়া। ২০০৬ সালের ২৮শে অক্টোবর জন্ম হয়েছে ওই কিশোরির। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার দায়ের করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা গিয়েছে ওই বালিকার বাড়িতে তদন্ত সূত্রে যায় পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর নাবালিকার বাবা এই বিয়ের ঘটনা অস্বীকার করেছেন।

সূত্রের খবর ওই নাবালিকার সঙ্গে বিয়ের সব অনুষ্ঠান এখনও সম্পন্ন হয়নি মৌলানার। তবে নিকার প্রাথমিক অনুষ্ঠান করা হয়েছে। পাকিস্তানে ১৬ বছরের নীচে মেয়েকে বিয়ে করা অসাংবিধানিক বলে মনে করা হয়। এর আগেও একাধিকবার বালোচিস্তানের নাগরিকদের মানবাধিকার নিয়ে সরব হতে দেখা গিয়েছে ভারতকে। সঙ্গে একাধিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার দায়ের করা অভিযোগও মিলেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক রিপোর্ট জানিয়ে ছিল পাকিস্তানের হিন্দু ও খ্রিস্টান মহিলাদের ওপর চলছে অকথ্য অত্যাচার। চিনে তাঁদের যৌনদাসী বা রক্ষিতা বানিয়ে পাঠানো হচ্ছে বলে খবর। ইউএস অ্যাম্বাসাডর অ্যাট লার্জ ফর ইন্টারন্যাশনাল রিলিজিয়াস ফ্রিডম, স্যামুয়েল ডি ব্রাউনব্যাক জানিয়ে ছিলেন এই তথ্য। এক বিশেষ রিপোর্ট সামনে আনেন তিনি। তিনি জানান চিনের বিশেষ নাগরিকদের রক্ষিতা বা মিসট্রেস বানিয়ে পাঠানো হচ্ছে পাকিস্তানের হিন্দু ও খ্রিস্টান মহিলাদের। জোর করে যৌনদাসী হতে বাধ্য করা হচ্ছে তাঁদের।

স্যামুয়েলের পর্যবেক্ষণ, এই ধরণের ঘটনার সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে, কারণ পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের কোনও নিরাপত্তা নেই। খুব সহজেই তাঁদের ওপর অত্যাচার চালিয়ে বা প্রাণের ভয় দেখিয়ে যে কোনও কাজ করিয়ে নেওয়া সম্ভব। পাক প্রশাসনের সম্পূর্ণ মদতেই এই ধরণের ঘটনা ঘটে থাকে। স্যামুয়েল এদিন আরও জানান, আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা আইনের আওতায় পাকিস্তান অত্যন্ত দুর্বল রাষ্ট্র হিসেবে বিবেচিত। পাকিস্তানের সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তাহীনতা বেশ উদ্বেগজনক।

২০১৯ সালে সংবাদসংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস জানিয়ে ছিল ৬২৯ জন পাক মহিলাকে চিনে পাচার করা হয়েছে যৌনদাসী হিসেবে। তাদের তালিকাও তুলে ধরেছিল অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস। মূলত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অসহায়তার সুযোগ নিয়ে এই ধরণের ঘটনা ঘটানো হচ্ছে।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।

Back to top button