Doctor Tips

৬টি খাবার নিশ্চিন্তে খান

কোন মানুষ কি আছেন যিনি ফিট রাখতে চাননা নিজেকে? কেউ নেই, সবাই চান তিনি যেন সবসময় ভাল ও ফিট থাকেন। কিন্তু নিজেদের অজান্তেই এমন কিছু খেয়ে ফেলেন বা নিয়ম মেনে চলা হয়না তাই আবার শরীরে মেদ চলে আসে। সবসময় মনে হয় কোনটা খাবো কিন্তু মেদ হবে না, তাই সেই প্রশ্নের উত্তর দিতে আপনাদের জানানো হচ্ছে এমন ৬টি খাবাররের নাম যা নিশ্চিন্তে খেতে পারেন এবং এতে আপনার মেদ বাড়বে না একটুও।

১) স্যুপঃ ভেজিটেবল বা চিকেন যে কোন স্যুপ আপনার স্বাস্থ্যের জন্য খুব প্রয়োজনীয়। স্যুপ আপনার শরীরে প্রয়োজনীয় প্রোটিনের যোগান দেয় এবং খিদে মেটায়। কিন্তু শরীরে অতিরিক্ত কোন ক্যালোরি যুক্ত হয়না এটি খেলে।

২) ওটমিলঃ ব্রেকফাস্টে অন্যান্য দানাশস্য বাদ দিয়ে খাওয়া শুরু করুন ওটমিল। এই দানাশস্যটিতে প্রচুর ফাইবার ও বিটাগ্লু থাকে যা আপনার হার্টকে খুব ভাল রাখবে এবং পাশাপাশি খিদে মেটাবে।

৩) আপেলঃ মূল খাবারের আধঘন্টা আগে একটা আপেল খান, আপেলে প্রচুর পরিমানে জল এবং ফাইবার থাকে যা আপনার শরীরে জলের প্রয়োজনীয়তা মেটায়।

৪) ডিমঃ ব্রেকফাস্টে রাখতে পারেন একটি ডীম প্রত্যেকদিনে। ডিমের উচ্চ ক্যালোরি ও প্রোটিন আপনার শরীরে সবথেকে বেশি শক্তি জোগাবে। এছাড়াও ব্রেকফাস্ট থেকে লাঞ্চের মধ্যে খিদের সম্ভাবনা আর থাকেনা, এবং অতিরক্ত মেদ আনেনা শরীরে।

৫) ডার্ক চকোলেটঃ কখনও মিষ্টি খেতে ইচ্ছে হলে অন্য কিছুর বদলে খান ডার্ক চকোলেট। এই মিষ্টি খাদ্যটি ব্লাড প্রেসারের হাত থেকে আপনাকে বাঁচাবে এবং আপনার মস্তিস্ক , হার্টকে রক্ষা করবে কোন ধরনের মারনরোগের থেকে।

৬) অ্যাভোকাডোসঃ দুপুরের খাবারের সঙ্গে অর্ধেক অ্যাভোকড খেলে দুপুর থেকে সন্ধ্যে ৮টা পর্যন্ত আপনার পেট ভর্তি থাকবে।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.
হ্যাঁ, আমি অনুদান করতে ইচ্ছুক >

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।

Back to top button