Cricket

Australia retain Women’s Ashes trophy after draw in only Test of the series

টনটন: ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে একমাত্র টেস্ট ড্র করে মেয়েদের অ্যাসেজ ট্রফি নিজেদের দখলেই রেখে দিল অস্ট্রেলিয়া৷ ওয়ান ডে ও টেস্টের পর অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা ৮-২ পয়েন্টে পিছনে ফেলে দেয় ইংল্যান্ডকে৷ সিরিজের তিনটি টি-২০ ম্যাচে জিতলে অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট ছোঁয়া সম্ভব হবে ব্রিটিশদের পক্ষে, তবে অজিদের টপকে যাওয়া সম্ভব নয়৷ সুতরাং আগেই জিতে নেওয়া মেয়েদের অ্যাসেজ ট্রফি আপাতত ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ক্যাবিনেটেই শোভা পাবে৷

২০১৩ অ্যাসেজ সিরিজ থেকে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মেয়েদের ক্রিটেটীয় লড়াই নতুন পয়েন্ট সিস্টেমে হয়ে থাকে৷ তিন ফর্ম্যাটের সম্মিলিত সিরিজ খেলা হয়৷ প্রতিটি ওয়ান ডে ও টি-২০ ম্যাচে জয়ের জন্য ২ পয়েন্ট করে দেওয়া হয় হয় বিজয়ীদের৷ টাই হলে দু’দলকে ১ পয়েন্ট করে ভাগ করে দেওয়া হয়৷ ৪দিনের টেস্ট ম্যাচে জিতলে সংশ্লিষ্ট দল ৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করে৷ তবে টেস্ট ড্র হলে দু’দলের খাতায় যোগ হয় ২ পয়েন্ট করে৷

আরও পড়ুন: টেস্ট ও সীমিত ওভারের ক্রিকেটে আলাদা কোচ ও ক্যাপ্টেনের ভাবনা পাকিস্তানের

এবার মেয়েদের অ্যাসেজ সিরিজে তিনটি ওয়ান ডে, একটি টেস্ট ও তিনটি টি-২০ ম্যাচ খেলা হবে৷ তিনটি ওয়ান ডে ম্যাচেই জিতেছে অস্ট্রেলিয়া৷ সেই হিসাবে ওয়ান ডে থেকে ৬ পয়েন্ট ঘরে তুলেছে অজিরা৷ একমাত্র টেস্ট ম্যাচ ড্র হওয়ায় দু’দলই ২ পয়েন্ট করে পেয়েছে৷ অর্থাৎ অস্ট্রেলিয়ার খাতায় যোগ হয়েছে সাকুল্যে ৮ পয়েন্ট৷ ইংল্যান্ডের সংগ্রহে রয়েছে ২ পয়েন্ট৷ তিনটি টি-২০ ম্যাচ ইংল্যান্ড জিতলে দু’দলের পয়েন্ট ৮-৮ হতে পারে৷ তা হলেও অজিদের থেকে ট্রফি ছিনিয়ে নেওয়া সম্ভব নয় ব্রিটিশদের৷ তবে টি-২০ ম্যাচ জিতে সিরিজ জয়ের ব্যবধান বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ আছে অস্ট্রেলিয়ার সামনেও৷

টেস্টের প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া ৮ উইকেটে ৪২০ রান তুলে ডিক্লেয়ার করে দেয়৷ এলিস পেরি ১১৬ রান করেন৷ এছাড়া অ্যালিসা হিলি ৫৮ ও মেগ ল্যানিং ৫৭ ও রাচেল হেইনস ৮৭ ও বেদ মুনি ৫১ রানের যোগদান রাখেন৷ ২টি করে উইকেট নেন ব্রান্ট, একলেসস্টোন ও মার্শ৷

আরও পড়ুন: ধোনির মতো কিংবদন্তি জানে কখন অবসর নিতে হয়: প্রসাদ

পালটা ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড ফলো-অন এড়িয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় অস্ট্রেলিয়াকে৷ ইংল্যান্ড ৯ উইকেটে ২৭৫ রান তুলে তাদের প্রথম ইনিংস ডিক্লেয়ার করে দেয়৷ নাতালি সিভার ৮৮ ও অ্যামি জোনস ৬৪ রান করেন৷ ৪টি উইকেট নেন মলিনেক্স৷ ১৪৫ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় দফায় ব্যাট করতে নামা অস্ট্রেলিয়া ৭ উইকেটে ২৩০ রান তুলেল ম্যাচ ড্র ঘোষিত হয়৷ পেরি দ্বিতীয় ইনিংসেও ৭৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন৷ তিনিই ম্যাচের সেরা হয়েছেন৷

Leave a Reply

Back to top button
Close