Cricket

India A beat West Indies A by 8 wickets in 5th unofficial ODI

অ্যান্টিগা: সিরিজ জয় আগেই নিশ্চিত করেছিল ভারত৷ নিয়ম রক্ষার চতুর্থ বেসরকারী ওয়ান ডে ম্যাচে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যবধান কমায়৷ তবে শেষ ম্যাচে পুনরায় দাপুটে জয় তুলে নিয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ ৪-১ ব্যবধানে পকেটে পোরে মণীশ পান্ডের নেতৃত্বাধীন ভারতীয়-এ দল৷

কুলিজ ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ‘এ’ দলের পঞ্চম বেসরকারি ওয়ান ডে ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ৷ সুনীল অ্যাম্ব্রিস ও শেরফান রাদারফোর্ডের জোড়া হাফসেঞ্চুরিতে ভর করে ক্যারিবিয়ানরা ৪৭.৪ ওভারে ২৩৬ রানে অল-আউট হয়ে যায়৷ গোটা সিরিজের মতো এই ম্যাচেও ভারতীয় বোলাররা সম্মিলিত আক্রমণে অস্বস্তিতে ফেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ-এ দলকে৷

আরও পড়ুন: সেমিফাইনালে স্বপ্নভঙ্গ লিয়েন্ডারের

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৩৩ ওভারে মাত্র ২ উইকেটের  বিনিময়ে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ২৩৭ রান তুলে নেয়৷ নিশ্চিত শতরান হাতছাড়া হয় ওপেনার ঋতুরাজ গায়কোয়াড়ের৷ হাফসেঞ্চুরি করেন অপর ওপেনার শুভমন গিলও এবং তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা শ্রেয়স আইয়ার৷ ভারত ম্যাচ জেতে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে৷

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ৭০ বলে সর্বোচ্চ ৬৫ রান করেন রাদারফোর্ড৷ অ্যাম্ব্রিস ৫২ বলে ৬১ রানের আগ্রাসী ইনিংস খেলেন৷ এছাড়া ইনিংসের শেষ দিকে খারি পিয়ের ব্যাট হাতে ৩৫ রানের কার্যকরী যোগদান রাখেন৷ বাকিদের মধ্যে দু’অঙ্কের রান ওটলির ২১, কীমো পলের ১৩ ও কর্নওয়ালের ১০৷

আরও পড়ুন: ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডকে হারাল ভারত

ছ’জন ভারতীয় বোলারই পালা করে উইকেট তুলেছেন৷ নভদীপ সাইনি ৮ ওভারে ৩১ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট নিয়েছেন৷ দীপক চাহার ৬.৪ ওভারে ৩৯ রানের বিনিময়ে নেন ২টি উইকেট৷ রাহুল চাহার ৯ ওভারে ৫৩ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট দখল করেন৷ এছাড়া ১টি করে উইকেট পকেটে পোরেন খলিল আহমেদ, ক্রুণাল পান্ডিয়া ও অক্ষর প্যাটেল৷

পালটা ব্যাট করতে নেমে দুই ভারতীয় ওপেনারই দলকে জয়ের ভিতে বসিয়ে দিয়ে যান৷ শুরু থেকেই ঝোড়ো ব্যাটিং করেন শুভমন গিল৷ ৭টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে মাত্র ২৯ বলে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি৷ ভারত প্রথম ১০ ওভারে বিনা উইকেটে ৯৬ রান তোলে৷ শেষে ওপেনিং জুটিতে ১১১ রান যোগ করে আউট হন গিল৷ ফিরে যাওয়ার আগে ৪১ বলে ৬৯ রান করেন তিনি৷

আরও পড়ুন: হিমাকে অভিনন্দন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর

টুর্নামেন্টে এটি তার তৃতীয় হাফসেঞ্চুরি৷ ৪ ম্যাচে ২১৮ রান সংগ্রহ করা গিলই টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী৷ ধারাবাহিকভাবে রান করে চলা গিল এদিনের ঝোড়ো হাফসেঞ্চুরিতে বোধহয় জাতীয় নির্বাচকদের উপেক্ষার জবাব দিতে চাইলেন৷ কেননা, এমএসকে প্রসাদরা তাঁকে সিনিয়র দলের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের দু’টি সীমিত ওভারের সিরিজের জন্য বিবেচনা করেননি৷

ব্যক্তিগত শতরানের দোরগোড়ায় আউট হয়ে বসেন ঋতুরাজ৷ ৮৮ বলে ৯৯ রান করে ক্রিজ ছাড়েন তিনি৷ মণীশ পান্ডেকে সঙ্গে নিয়ে দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন শ্রেয়স৷ তিনি অপরাজিত থাকেন ৬৪ বলে ৬১ রান করে৷ মণীশ অপরাজিত থাকেন ৬ বলে ব্যক্তিগত ৭ রানে৷ ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ১টি করে উইকেট নিয়েছেন কীমো পল ও কর্নওয়াল৷

Leave a Reply

Back to top button
Close