International

Kabul Drone Attack: ‘কেবল ভুল স্বীকার করলেই হবে না…’, US Army-র বিরুদ্ধে রাগে ফুঁসছে মৃতের পরিবার

: ২৯ অগাস্ট কাবুলে ড্রোন হামলা নিয়ে শনিবারই ভুল স্বীকার করেছে আমেরিকা। ওই হামলাকে ‘দুর্ভাগ্যজনক ভুল’ বলে মেনে নিয়েছেন মার্কিন সেনা জেনারেল Frank McKenzie। তবে মার্কিন সেনার এই স্বীকারোক্তিকে মানতে নারাজ আক্রান্তদের পরিবার। তঁদের সাফ কথা, কেবল ভুল স্বীকার করলেই হবে না। 
শনিবার মার্কিন সেনা আধিকারিক Frank McKenzie বলেন, “ওই ড্রোন হামলায় কমপক্ষে ১০ জন সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। যাদের মধ্যে ৭ জন শিশু ছিল। ড্রোন হামলা নিয়ে আমাদের তদন্ত শেষ হয়েছে। তদন্ত থেকে একটা বিষয় স্পষ্ট যে ওই হামলা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ভুল ছিল।” তাঁর এই বক্তব্য শোনার পরই মার্কিনসেনার উপর ক্ষোভে ফেটে পড়েন আইমল আহমেদি (Aimal Ahmadi)।  ২৯ অগাস্ট মার্কিন ড্রোন হামলায় তিন বছরের মেয়ে মালিকাকে হারিয়েছেন তিনি। তাঁর দাবি, ওই ড্রোন হামলাটি কে চালিয়েছিল, সেই সেনার নাম প্রকাশ করুক মার্কিন বাহিনী। চোখের জল মুছতে মুছতে তিনি বলেন, “আমি পরিবারের ১০ জনকে হারিয়েছিল। এর বিচার চাই।”  

আরও পড়ুন: Afghanistan: মেয়েদের স্কুলে ফেরায় বাধা, প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের অভিযোগ তালিবানের বিরুদ্ধে
আরও পড়ুন: Kabul attack:’Drone হামলা ভুল ছিল, ৭টা শিশু মারা গিয়েছে, বিস্ফোরক দাবি মার্কিন সেনা আধিকারিকের
সংবাদ সংস্থা এপি’র কাছে ওই সেনা কর্মীর শাস্তির দাবি করেন আইমল আহমেদি (Aimal Ahmadi)।  ২৯ অগাস্ট একটি সাদা সেডান গাড়িতেও ড্রোন হামলা চালিয়েছিল মার্কিন সেনা। সেনার কাছে তথ্য ছিল যে, ওই গাড়িতে বিস্ফোরক বোঝাই করা রয়েছে। সূত্রের খবর, বাস্তবে গাড়িটি জেমারি আহমেদি নামে এক স্বেচ্ছাসেবকের ছিল এবং গাড়িটিতে জল ভর্তি বোতল ছিল।

Back to top button